ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG

স্পোর্টস ডেস্ক

১৮ জানুয়ারি ২০১৯, ১৭:০১

সাকিবের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে, ঢাকার সহজ জয়

10438_সাকিব.jpg
সিলেট সিক্সার্সের অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার ঝড় তুললেন, সাকিব আল হাসান যেন অপেক্ষাতে ছিলেন। ঝড়ের জবাবটা ঝড় দিয়েই দিলেন ঢাকা ডায়নামাইটসের অধিনায়ক। তার দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ভর করে ৩ ওভার হাতে রেখেই ৬ উইকেটের সহজ জয় পেয়েছে ঢাকা।

লক্ষ্য ১৫৯ রানের। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের বোল্ড মিজানুর রহমান। ১০ বলে ২০ করে সুনিল নারিনও সাজঘরে। ১৩ বলে ১৩ করলেন রনি তালুকদার।

৩৭ রানের মধ্যে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে গিয়েছিল ঢাকা ডায়নামাইটস। সেখান থেকে দলকে টেনে তুলেন সাকিব। ৪০ বলে ৮ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় ৬০ রানের ঝড়ো এক ইনিংস খেলে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ঢাকা অধিনায়ক।

মাঝে ডারওয়াইস রাসোলি ১৯ করে ফেরার পর নেমেছিলেন আন্দ্রে রাসেল। তিনিও সাকিবের মারকাটারি ব্যাটিংয়ে ভালোই সঙ্গ দিয়েছেন। মাত্র ২১ বলে ২ চার আর ৪টি বিশাল ছক্কায় হার না মানা ৪০ করেন ক্যারিবীয় এই ব্যাটসম্যান।

এর আগে, বলতে গেলে দলকে একাই টেনে নিয়েছিলেন ওয়ার্নার। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনারের ৪৩ বলে ৬৩ রানের ঝড়ো ইনিংসে ভর করেই ৮ উইকেটে ১৫৮ রানের চ্যালেঞ্জিং পুঁজি পায় সিলেট সিক্সার্স।

টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় সিলেট। দুই ওপেনার লিটন দাস আর সাব্বির রহমানের শুরুটা খারাপ ছিল না। ২৯ বলের জুটিতে তারা তুলেন ৩৮ রান। ১৪ বলে ৪ বাউন্ডারি আর ১ ছক্কায় ২৭ রানে থাকা ভয়ংকর লিটনকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন সাকিব।

পরের ওভারের প্রথম বলে আন্দ্রে রাসেলের শিকার হয়ে ফেরেন সাব্বিরও (১৬ বলে ১১)। তৃতীয় উইকেটে আফিফ হোসেন ধ্রুব আর ওয়ার্নার মিলে গড়েছিলেন ৩০ রানের জুটি। ১৭ বলে ২ চার আর ১ ছক্কায় ১৯ রান করা আফিফকে ফিরিয়ে এই জুটিটি ভাঙেন প্রোটিয়া পেসার অ্যান্ড্রু বার্চ।

এরপর অল্প সময়ের মধ্যে অলক কাপালি (০) আর নিকোলাস পুরানকে (৬) হারিয়ে বড় বিপদে পড়ে সিলেট সিক্সার্স। ৮৬ রানের মধ্যে তারা হারিয়ে বসে ৫ উইকেট। সেখান থেকে দলকে টেনে নিয়েছেন ওয়ার্নার।

ষষ্ঠ উইকেটে জাকের আলির সঙ্গে ৬৩ রানের বড় জুটি গড়েন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার। ৪৩ বলে ৮ বাউন্ডারি আর ১ ছক্কায় ৬৩ রানে থাকার সময় সাকিবকে তুলে মারতে গিয়ে মোহাম্মদ নাঈমের ক্যাচ হন তিনি।

এ নিয়ে চলতি বিপিএলে ৬ ম্যাচ খেলে তিনটি ফিফটি করলেন ওয়ার্নার। রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে সর্বশেষ ম্যাচেও ৩৬ বলে হার না মানা ৬১ রানের বিধ্বংসী এক ইনিংস এসেছিল অস্ট্রেলিয়ান এই তারকার উইলো থেকে।

ওয়ার্নার ফিরলেও শেষের দিকে জাকের আলির ১৮ বলে ১টি করে চার ছক্কায় গড়া ২৫ রানের ছোট ঝড়ে লড়াকু পুঁজি পর্যন্ত যেতে পেরেছে সিলেট।

৪ ওভার হাত ঘুরিয়ে ৪২ রান খরচ করলেও ৩টি উইকেট নিয়ে ঢাকা ডায়নামাইটসের সবচেয়ে সফল বোলার অ্যান্ড্রু বার্চই। সাকিব নিয়েছেন ২টি। একটি করে উইকেট আন্দ্রে রাসেল, রুবেল হোসেন আর সুনিল নারিনের।