ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

স্পোর্টস ডেস্ক:

১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ২৩:০১

খুলনাকে বড় ব্যবধানে হারালো চট্টগ্রাম

10478_khela.jpg
খেলায় তো হার-জিত থাকবেই, এটা নিয়ে তেমন কথা নেই। কিন্তু এরকম ম্যাচই তো দেখতে চায় সবাই। রানের ফুলঝুরির পাশাপাশি থাকবে উইকেট পতন। পাহাড়সম রান তাড়া করতে নেমে আরেক দলও থাকবে রান ছোঁয়ার কাছাকাছি। ঠিক এরকমই এক ম্যাচ উপহার দিলো খুলনা ও চট্টগ্রাম।

বিগ স্কোরিংয়ের ম্যাচে অবশ্য শেষ হাসিটা হেসেছে বন্দর নগরীর দলই। চিটাগং ভাইকিংসের ২১৪ রানের জবাবে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৮৮ রানে শেষ হয়েছে খুলনার ইনিংস। ফলে ২৬ রানে জিতে পয়েন্ট টেবিলের তিনে উঠে এসেছ। অন্যদিকে তলানীতেই থাকতে হচ্ছে খুলনাকে।

সিলেট স্টেডিয়ামে আজ দিনের শেষ ম্যাচে ছিল রানের উৎসব। শুরুতে ব্যাটিং করে চিটাগং ভাইকিংস দুই অর্ধশতক ও শানাকা ঝড়ে ভর করে এবারের বিপিএলে সর্বোচ্চ ও দুশো পেরোনো ইনিংস দাঁড় করায়। মুশফিক (৫২) ও ইয়াসিরের (৫৪) পর ঝড় তোলেন দাসুন শানাকা। ১৭ বলে তিন চার ও চার ছক্কায় ৪২ রানে অপরাজিত থাকেন।

আর শুরুতে মোহাম্মদ শেহজাদের ১৭ বলে ৩৩ ও নজিবুল্লাহ জাদরানের ৫ বলে ১৬ রানের ইনিংসে ভর করে ২১৪ রানে পাহাগসম সংগ্রহ দাঁড় করায়। খুলনার হয়ে মালিঙ্গা, শুভাসিষ ও রিয়াদ পুরোপুরি ব্যর্থ ছিলেন। ডেভিড ওয়াইজ ২টি এবং শরিফুল ও তাইজুল একটি করে উইকেট নেন।

২১৫ রানের পাহাড়সম লক্ষ্য নিয়ে ক্রিজে নেমে শুরুতেই বড় ধাক্কা খেয়েছিল খুলনা টাইটান্স। মাত্র আঠারো রানে হারিয়ে বসে স্টার্লিং (০), জুনায়েদ সিদ্দিকী (১২) ও আল আমিনকে (৫)। কিন্তু টেইলর,ওয়াইজ ও তাইজুলের ব্যাটে এগিয়ে যাচ্ছিল টাইটান্স। তবে আবু জায়েদ আর খালিদ আহমেদের বলে লক্ষ্য থেকে ২৬ রানে দূরে থাকতেই শেষ হয় খুলনার ইনিংস।

অধিনায়ক হিসেবে দলের হাল ধরে অর্ধশত রানের ইনিংস খেলেও দলের হার বাঁচাতে পারেননি রিয়াদ। ডেলপোর্টের বলে বোল্ড হয়ে ফেরার আগে তিন চার ও চার ছক্কায় ২৬ বলে ৫০ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলেন। কিন্তু সেই ইনিংস কোনও কাজে আসেনি।

বিপিএলের সিলেট পর্বের পর্দা নেমেছে আজ। সিলেট মাতিয়ে বিপিএল আবারও ফিরছে ঢাকার মাঠে। ফেরার দিনে আগামীকাল রোববার কোনও ম্যাচ মাঠে গড়াবে না। একদিনের বিরতি দিয়ে বিপিএলে ঢাকা দ্বিতীয় পর্বের খেলা শুরু হবে আগামী সোমবার।