ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG

স্পোর্টস ডেস্ক:

২৫ জানুয়ারি ২০১৯, ২৩:০১

চিটাগংকে সহজেই হারাল রংপুর

10672_imag.jpg
চট্টগ্রামের সাগরিকায় পুরো ২০ ওভার ব্যাটিং করে রংপুর রাইডার্স স্কোরবোর্ডে ২৩৯ রান তুলেছিল। এই রান দেখে অনেকেই ডি ভিলিয়ার্স ও গেইলের রান দেখতে তাকিয়েছিলেন নামের পাশে। কিন্তু এ দু’জনের রান যে মাত্র ৩! তাহলে এতো রান করলো কে? আসলে গেইল ঘুমিয়ে থাকলে কি হবে, রাইলি রুশো আর অ্যালেক্স হেলস যে আছেন রানের নেশায়। এ দুজনের জোড়া শতকে ভর করে বিপিএলের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রান তুলেছিল রংপুর। সেই সাথে ঘরের মাঠেই ৭২ রানের বড় হারের স্বাদ পেলো পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা চিটাগং ভাইকিংস।

বিপিএলে ৭ ম্যাচে ১৩ গড়ে ক্যারিবীয় ওপেনার গেইলের রান ৯৬। পুরো টুর্নামেন্টে গেইল এখনো ১০০ করতে না পারলেও হেলস আর রুশো দুজনই আজ চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষেই সেঞ্চুরি করেছেন! চট্টগ্রামের দর্শকদের সামনে চিটাগং বোলারদের কচুকাটা করতে প্রথমে হেলসকে সহায়তা করে গেছেন এবারের বিপিএল স্বপ্নের মতো কাটানো রুশো। দুজন যেভাবে ইচ্ছে সেভাবেই পিটিয়েছেন চিটাগং বোলারদের। গড়েছেন এই বিপিএলে সর্বোচ্চ ১৭৪ রানের জুটি। আর এতে রংপুর পায় ৪ উইকেটে ২৩৯ রানের বিশাল স্কোর। যেটি বিপিএল ইতিহাসেই সর্বোচ্চ।

২৪০ রানের পাহাড়সম রান তাড়া করতে নেমে বেশ চড়াওভাবে শুরু করেছিল মুশফিকের দল। তবে শেহজাদ(২০) ও সিকান্দার(৩) ফিরে যাওয়ার পর ইয়াসির আলীকে নিয়ে মুশফিক (২২) প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। আসলে রানের চাপে যেন একটু দিশেহারা হয়ে পড়েছিল ভাইকিংসরা। ইয়াসির আলী ৭৮ রানে ফেরার পর আর কেউই দাঁড়াতে পারেননি রাইডার্সদের বলের সামনে। জয় থেকে ৭২ রান দূরে থাকতেই শেষ হয় ভাইকিংসদের ইনিংস।

এর আগে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টস জিতে রংপুরকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে বোধহয় ভুলই করেছিলেন অধিনায়ক মুশফিক। এটা টের পেয়েছিলেন পাওয়ার প্লেতেই। দলীয় ৬ রানে গেইল ফিরে যাওয়ার পরই শুরু হয় হেলস তা-ব। পাওয়ার প্লেতে যে ৬৯ রান উঠল রংপুরের, ৬১ রানই হেলসের! পরে ফিরে গেছেন ৪৮ বলে ১০০ রানের মাথায়। তার আগে রুশোর সঙ্গে ১৭৪ রানের জুটি গড়ে রানকে নিয়ে গেছেন পাহাড়ের চুড়ায়। হেলস ফেরার পর শুরু হয় রুশো ঝড়। ৫১ বলে তিন অঙ্ক ছোঁয়ার পথে ছক্কা মেরেছেন ৬ টি, চার ৮ টি। হেলস-রুশোর সৌজন্যে বিপিএল প্রথমবারের মতো এক ইনিংসে জোড়া সেঞ্চুরি দেখলো, যা ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টিতে তৃতীয়।