ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG

স্পোর্টস ডেস্ক:

২৯ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:০১

রাজশাহীর বিপক্ষে হেসে খেলেই জয় পেল রংপুর রাইডার্স

10794_criket.jpg
ফরহাদ রেজার দুর্দান্ত বোলিংয়ের পর রাইলি রুশোর অসাধারণ ব্যাটিং। তাদের পারফরম্যান্সে ভর করে রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে হেসে খেলেই ৬ উইকেটের জয় পেল রংপুর রাইডার্স। এই জয়ে ১১ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে উঠে এল মাশরাফি বিন মুর্তজার নেতৃত্বাধীন রংপুর রাইডার্স। এক ম্যাচ কম খেলে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় পজিশনে আছে মুশফিকুর রহিমের নেতৃত্বাধীন চিটাগং ভাইকিংস।

মঙ্গলবার চট্টগ্রামে প্রথমে ব্যাটিং করে ১৪১ রানে গুটিয়ে যায় মেহেদী হাসান মিরাজের নেতৃত্বাধীন রাজশাহী কিংস। টার্গেট তাড়া করতে নেমে ৪ উইকেট হারিয়ে ৮ বল হাতে রেখে জয় নিশ্চিত করে রংপুর রাইডার্স।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয় করে মেহেদী হাসান মিরাজের নেতৃত্বাধীন রাজশাহী কিংস। বিপিএলের ৩৬তম ম্যাচে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই সাজঘরে ফেরেন জনসন চার্লস। আগের ম্যাচে ৫৫ রান করা রাজশাহীর এই ক্যারিবীয় ওপেনার ফরহাদ রেজার বলে মাশরাফির হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ১২ রান করার সুযোগ পান।

ওয়ান ডাউনে ব্যাটিংয়ে নেমে কিছু বুঝে ওঠার আগেই নাহিদুল ইসলামের বলে বোল্ড মুমিনুল হক সৌরভ। আগের সাত ম্যাচে মাত্র ৭১ রান করা মুমিনুল, এদিন ফেরেন মাত্র ৪ রান করেন।

দলীয় ৬২ রানে ফেরেন সৌম্য সরকার। চলতি বিপিএলে রানখরায় ভুগছেন জাতীয় দলের এই ওপেনার। রাজশাহীর হয়ে আগের ৭ ম্যাচে (৪, ১১*, ০, ১৮, ২, ৩ ও ২৬) সবমিলে ৬৪ রান করা সৌম্য মঙ্গলবার ফেরেন ১৬ বলে ১৪ রান করে।

সৌম্যর বিদায়ের পর ব্যাটিংয়ে নেমে সুবিধা করতে পারেননি দলীয় অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজ। ডাউন দ্য উইকেটে খেলতে গিয়ে নাজমুল ইসলাম অপুর বলে বোল্ড হন তিনি। সাজঘরে ফেরার আগে ৪ বলে ৬ রান করেন মিরাজ।

দলের ব্যাটিং বিপর্যয়ের দিনে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে পারেননি ফর্মে থাকা লরি ইভান্স। চলতি বিপিএলে প্রথম সেঞ্চুরি করা রাজশাহীর এই ইংলিশ ক্রিকেটার এদিন ফেরেন ৩১ বলে ৩৫ রান করে।ছয় নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমে ১১ বলে ১৬ রান করে অপুর দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন ক্রিশ্চিয়ান জনকার।

ইনিংসের শেষ দিকে দায়িত্বশীল ব্যাটিং করেন ফজলে মাহমুদ ও রাজশাহীর আফগান লেগ স্পিনার কাজী আহমেদ। শেষ ওভারে আউট হওয়ার আগে ১৮ ও ২২ রান করেন ফজলে মাহমুদ ও কাজী আহমেদ। রাজশাহী থাকে ৮ উইকেটে ১৪১ রান নিয়ে। রংপুরের হয়ে ৩০ রানে তিন উইকেট শিকার করেন ফরহাদ রেজা।

১৪২ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে দলীয় ১৩ রানে ফেরেন রংপুর রাইডার্সের ওপেনার ক্রিস গেইল। চলতি বিপিএলে প্রত্যাশার ব্যাটিং করতে পারছেন না ক্রিস গেইল। আগের দুই ম্যাচে ১ ও ২ রানে আউট হওয়া রংপুর রাইডার্সের ক্যারিবীয় হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান মঙ্গলবার ফেরেন মাত্র ১০ রানে। চলতি বিপিএল এনিয়ে ৯ ম্যাচে ১১. ৮৯ গড়ে ১০৭ রান করেন গেইল।

তবে রংপুরের হয়ে দুর্দান্ত ব্যাটিং করছেন রাইলি রুশো ও অ্যালেক্স হেলস। রান সংগ্রহের দিক থেকে শীর্ষে রয়েছেন রুশো। হেলস-রুশো এবং এবি ডি ভিলিয়ার্সরা নিয়মিত রান করে যাওয়ায় টানা জয় পাচ্ছে রংপুর। দলের জয়ের কারণে সেভাবে নজরে আসছে না গেইলের ব্যাটিং ব্যর্থতা।

তবে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ব্যাটিং দানব হিসেব ক্রিস গেইলের যে জনপ্রিয়তা, তার খুনে ব্যাটিং দেখার জন্য এখনও অপেক্ষায় থাকেন দর্শকরা। কিন্তু ভক্ত-সমর্থকদের সেই প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ গেইল।

গেইলের বিদায়ের পর ওয়ান ডাউনে ব্যাটিংয়ে নামা রাইলি রুশোর সঙ্গে ৪১ রানের জুটি গড়ে সাজঘরে ফেরেন অ্যালেক্স হেলস। আগের দুই ম্যাচে ১০০ ও ৮৫* রান করা হেলস এদিন ফেরেন ১৬ রানে।

এরপর চার নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নামা এবি ডি ভিলিয়ার্সকে সঙ্গে নিয়ে ৭১ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের কাছা কাছি নিয়ে যান রাইলি রুশো। আগের দুই ম্যাচে ১০০ ও ০ রান করা রুশো মঙ্গলবার কামরুল ইসলাম রাব্বির বলে বোল্ড হওয়ার আগে ৪৩ বলে পাঁচটি চার ও দু্ই ছক্কায় ৫৫ রান করেন।

জয়ের জন্য শেষ দিকে ২১ বলে রংপুরের প্রয়োজন ছিল মাত্র ১৫ রান। এমন অবস্থায় উইকেট হারান এবি ডি ভিলিয়ার্স। আগের ম্যাচে সেঞ্চুরি করা রংপুর রাইডার্সের এই হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান এদিন ফেরেন ২৭ বলে তিন ছক্কায় ৩৭ রান করে। শেষ দিকে ৭ বলে ১১ রান করে দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন নাহিদুল ইসলাম।
সংক্ষিপ্ত স্কোর

রাজশাহী কিংস: ২০ ওভারে ১৪১/৮ (ইভান্স ৩৫, কাজী আহমেদ ২২, ফজলে মাহমুদ ১৮; ফরহাদ রেজা ৩/৩০)।
রংপুর রাইডার্স: ১৮.৪ ওভারে ১৪৫/৪ (রুশো ৫৫, ভিলিয়ার্স ৩৭, হেলস ১৬)।
ফল: রংপুর রাইডার্স ৬ উইকেটে জয়ী।
ম্যাচসেরা: ফরহাদ রেজা (রংপুর রাইডার্স)।