ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG

৯ এপ্রিল ২০১৯, ১২:০৪

কী হয়েছিল সেই মাদ্রাসা ছাত্রীর সাথে?

11223_feni-sonagazi-map.jpg

ফেনীর সোনাগাজির এক মাদ্রাসা ছাত্রীর সাথে ঘটেছে রোমহর্ষক নিষ্ঠুরতা। ওই ছাত্রীকে ২৭ মার্চ মাদ্রাসার অধ্যক্ষ তার কক্ষে শ্লীলতাহানি করেন। মেয়েটি এ ঘটনা বাসায় বলে দেয়।  ওই অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে তার মা মামলা করে। গ্রেফতার হয় অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলা।

মামলা তুলে নিতে হুমকি আসতে থাকে মেয়েটি ও তার পরিবারের ওপর। রাজি না হওয়ায় ৬ এপ্রিল মেয়েটিকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করা হয়েছে। মেয়েটি মারা না গেলেও মারাত্নক পুড়ে গিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে আছে।

শনিবার মেয়েটি আলিম পরীক্ষা দিতে মাদ্রাসায় যায়। কক্ষে প্রবশেপত্রসহ ব্যাগ রেখে হলের বারান্দায় গিয়ে দাঁড়ায়। এসময় বান্ধবীকে মারা হচ্ছে জানিয়ে একটি মেয়ে  তাকে মাদ্রাসার ছাদে নিয়ে যায়। সেখানে মুখ বাঁধা আরো ৩জন ছিল। তারা মামলা তুলে নিতে এবং অভিযোগ মিথ্যা এই মর্মে বিবৃতি দিতে চাপ দেয়। কিন্তু মেয়েটি তখনও অস্বীকার করে।

এরপর ওই ৪ ব্যক্তি মেয়েটির ওপর চালায় নিষ্ঠুরতা। ওড়না দিয়ে মেয়েটির হাত বেঁধে ফেলে। গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। অতপর পালিয়ে যেতে বলে। গায়ে আগুন ধরা অবস্থায় মেয়েটি দৌড় দেয়। এতে সারা শরীরে আগুন ধরে যায়। আগুনে ওড়না পুড়ে ছাই হয়ে গেলে বাঁধন মুক্ত হয়।

আগুনে পুড়িয়ে হত্যা প্রচেষ্টার ওই ঘটনায় মামলা হয়েছে। এখনো পর্যন্ত ৭জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।