ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১২:০২

ইসরাইলের সঙ্গে কিছু আরব দেশের গোপন সম্পর্ক!

1249_21.jpg
ইসরাইলের সঙ্গে কিছু আরব দেশের গোপন সম্পর্কের অভিযোগ উঠেছে। সামপ্রতিক কিছু ঘটনার আলোকে সাংবাদিক ও বিশ্লেষকরা বলছেন, মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের প্রভাব মোকাবিলা করতে বেশ কিছু মধ্যপন্থী সুন্নি আরব দেশগুলোর সাথে ইসরাইলের ঘনিষ্ঠতা গড়ে উঠেছে। খবর বিবিসি’র
ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে সমপ্রতি রিপোর্ট করেছে মার্কিন দৈনিক নিউইয়র্ক টাইমস। ‘গোপন আঁঁতাত : কায়রোর সম্মতি নিয়ে মিসরের ভেতরে বিমান হামলা চালালো ইসরাইল’ শিরোনামের রিপোর্টটি লিখেছেন ডেভিড ডি ফিটজপ্যাট্রিক। এতে তিনি ‘বিস্ময়কর এবং অতিশয় গোপন’ এক সামরিক সম্পর্কের খুঁটিনাটি তুলে ধরেছেন। তিনি লিখছেন, দু’বছরে ইসরাইলের অচিহ্নিত ড্রোন, হেলিকপ্টার এবং জেট বিমানগুলো শতাধিক হামলা চালিয়েছে মিসরের সিনাই এলাকায়। ইসলামপন্থিদের ওপর চালানো হচ্ছে মিসরের প্রেসিডেন্ট আব্দুলল ফাত্তাহ আল-সিসির সম্মতি নিয়েই। মিসরের ভাষ্যকাররা অবশ্য একে ‘ফেক নিউজ’ এবং ‘অপেশাদার সাংবাদিকতা’ বলে আখ্যায়িত করে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।
ইরানের উত্থান, উপসাগর থেকে ভূমধ্যসাগর পর্যন্ত পুরো অঞ্চলজুড়ে তাদের প্রভাব বৃদ্ধি এবং তাদের পারমাণবিক কর্মসুচিতে বিশেষ করে উদ্বিগ্ন হয়ে উঠছে সৌদি আরব, মিসর এবং জর্ডান। বিবিসি’র জোনাথন মার্কাস লিখছেন, এ পরিস্থিতির চাপে মধ্যপন্থী সুন্নি আরব কিছু দেশ ইসরাইলের সাথে ঘনিষ্ঠ হয়ে উঠছে। কূটনৈতিক ইঙ্গিত এবং কিছু ব্রিফিং থেকে এর আভাস পাওয়া যায়। কিছুদিন আগে সৌদিভিত্তিক মুসলিম ওয়ার্ল্ড লিগের মহাসচিব ড. মোহাম্মদ আল-ইসা ওয়াশিংটনের হলোকস্ট মিউজিয়ামে এক খোলা চিঠি দিয়েছেন। তিনি ইহুদি নিধনযজ্ঞের শিকারদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।
যারা ‘হলোকস্ট আদৌ ঘটেনি’ বলে একে অস্বীকার করে তাদের নিন্দা করেছেন। সিরিয়ায় এখন যে শুধু মার্কিন, রুশ, তুর্কি ও ইরানি সৈন্যরাই তত্পরতা চালাচ্ছে তা নয়, তত্পর ইসরাইলও। ইসরাইল স্বীকার করেছে যে ২০১১ সাল থেকে তারা সিরিয়ার ভেতরে অন্তত ১০০টি গোপন বিমান হামলা চালিয়েছে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু কয়েক মাস আগেই লন্ডনে এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, ইরানের আগ্রাসন মোকাবিলায় তারা মধ্যপন্থী সুন্নি দেশগুলোর সাথে একটা ‘কার্যকর জোট’ গড়ে তুলতে কাজ করছেন।