ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

স্পোর্টস ডেস্ক:

২৬ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৭:১২

৯ জনেও সেঞ্চুরি হলো না গেইলদের

182_10.jpg
ক্রিস গেইল

ওয়ানডে ক্রিকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে দ্বিতীয়বারের মত হোয়াইটওয়াশের লজ্জা দিলো নিউজিল্যান্ড। আজ সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে ক্যারিবীয়দের বৃষ্টি আইনে ৬৬ রানে হারিয়ে তিন ম্যাচের সিরিজ ৩-০ ব্যবধানে জিতে নেয় কিউইরা। প্রথমবার ২০০০ সালে দেশের মাটিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করেছিল কিউইরা। তবে তিন ম্যাচের সিরিজে এই প্রথম ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করল নিউজিল্যান্ড।

ক্রাইস্টচার্চে হোয়াইটওয়াশের লক্ষ্য নিয়ে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় নিউজিল্যান্ড। প্রতিপক্ষকে ভালো শুরু করতে দেননি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বাঁ-হাতি পেসার শেল্ডন কটরেল।

নিউজিল্যান্ডের ওপেনার জিওর্জি ওয়াকার ও তিন নম্বরে নামা নিল ব্রুমকে শিকার করেন কটরেল। ওয়াকার ও ব্রুম ২ রান করে ফিরেন।

২৬ রানে ২ উইকেট হারিয়ে ব্যাকফুটে চলে যায় নিউজিল্যান্ড। এমন অবস্থায় কিউইদের শিবিরে আঘাত হানেন ক্যারিবীয় অধিনায়ক জেসন হোল্ডার। ১৯ বলে ২১ রান করা আরেক ওপেনার কলিন মুনরোকে বিদায় দেন হোল্ডার। তাই ২৬ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ধুকঁতে থাকা নিউজিল্যান্ডের আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে আনার চেষ্টায় সফল হন রস টেইলর ও অধিনায়ক টম লাথাম। ১৯ ওভার শেষে নিউজিল্যান্ডের স্কোর ৩ উইকেটে ৮৩ রানে নিয়ে যান টেইলর ও লাথাম। এতে ঘুড়ে দাঁড়ানোর পথ পেয়ে যায় নিউজিল্যান্ড।

এমন সময় বৃষ্টির কারণে বন্ধ হয়ে যায় খেলা। দীর্ঘক্ষণ খেলা বন্ধ থাকায় এক পর্যায়ে ৫০ ওভারের ম্যাচ ৩৩ ওভার নামিয়ে আনেন ম্যাচ অফিসিয়ালরা। কিন্তু বৃষ্টির তেজ আরো বেড়ে যাওয়ায় পরবর্তীতে আরো ১০ ওভার কেটে ২৩ ওভারে ম্যাচ নির্ধারন করেন ম্যাচ অফিসিয়ালরা।

তাই আর মাত্র ৪ ওভার ব্যাট করার লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে দলীয় ৯৯ রানে বিচ্ছিন্ন হন টেইলর ও লাথাম। চতুর্থ উইকেটে ৯০ বল মোকাবেলা করে টেইলরের সাথে ৭৩ রান যোগ করেন লাথাম। ৫টি চারে ৪২ বলে ৩৭ রান করেন তিনি।

এরপর টেইলরের সাথে জুটি বেধে নির্ধারিত ২৩ ওভারে ৪ উইকেটে নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ ১৩১ রান এনে দেন হেনরি নিকোলস। টেইলর ৬টি চারে ৫৪ বলে অপরাজিত ৪৭ রান করেন। নিকোলস ৩টি বাউন্ডারিতে ৯ বলে অপরাজিত ১৮ রান করেন। বৃষ্টির পর ৪ ওভার ব্যাট করে ৪৮ রান যোগ করে নিউজিল্যান্ড। ওয়েস্ট ইন্ডিজের কটরেল ১৯ রানে ২ উইকেট নেন।

নিউজিল্যান্ড ১৩১ রান করলেও ওভার কমিয়ে আনায় ২৩ ওভারে জয়ের জন্য ১৬৬ রানের টার্গেট পায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সেই লক্ষ্যে ব্যাট হাতে নেমে নিউজিল্যান্ডের দুই পেসার ম্যাট হেনরি ও ট্রেন্ট বোল্টের তোপের মুখে পড়ে ক্যারিবীয়দের ব্যাটসম্যানরা। তাই স্কোর বোর্ডে ৯ রান উঠতেই প্যাভিলিয়নে ফিরেন ৫ ব্যাটসম্যান।

ক্রিস গেইলকে ৪ ও কাইল হোপকে ১ রানে শিকার করেন হেনরি। চাদউইক ওয়ালটনকে শূন্য, শাই হোপকে ২ ও জেসন মোহাম্মদকে ১ রানে থামিয়ে দেন বোল্ট।

প্রথম ২৩ বলে ৫ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সেই সাথে ওয়ানডেতে সর্বনিম্ন রানে গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কায় পড়ে ক্যারিবীয়রা। তবে ষষ্ঠ উইকেটে ৪৮ রানের জুটি গড়ে লজ্জার হাত থেকে দলকে রক্ষা করেন অধিনায়ক জেসন হোল্ডার ও রোভম্যান পাওয়েল।

এরপর ৬৪ রানের মধ্যে হোল্ডার ও রোভম্যানকে তুলে নিয়ে নিউজিল্যান্ডকে জয়ের কাছাকাছি পৌছে দেন নিউজিল্যান্ডের বাঁ-হাতি স্পিনার মিচেল স্যান্টনার। হোল্ডার ২১ বলে ৩৪ ও রোভম্যান ১১ রান করেন। এছাড়া নিকিতা মিলার শেষদিকে অপরাজিত ২০ রান করেন। এতে ২৩ ওভারে ৯ উইকেটে ৯৯ রান করতে পারে ক্যারিবীয়রা। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এটিই ওয়েস্ট ইন্ডিজের সর্বনিম্ন রান। কিউইদের পক্ষে বোল্ট-স্যান্টনার ৩টি করে ও হেনরি ২টি উইকেট নেন। ম্যাচ সেরা হয়েছেন টেইলর। সিরিজ সেরা হন বোল্ট।

নেলসনে আগামী ২৯ ডিসেম্বর থেকে শুরু হবে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

নিউজিল্যান্ড : ১৩১/৪, ২৩ ওভার (টেইলর ৪৭*, লাথাম ৩৭, কটরেল ২/১৯)।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ : ৯৯/৯, ২৩ ওভার (হোল্ডার ৩৪, মিলার ২০*, স্যান্টনার ৩/১৫)।

ফল : নিউজিল্যান্ড ৬৬ রানে জয়ী।

ম্যাচ সেরা : রস টেইলর (নিউজিল্যান্ড)।

সিরিজ সেরা : ট্রেন্ট বোল্ট (নিউজিল্যান্ড)।

সিরিজ : তিন ম্যাচের সিরিজ ৩-০ ব্যবধানে জিতলো নিউজিল্যান্ড।