ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

এনএনবিডি ডেস্ক:

৩০ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৪:১২

ক্ষমা চেয়ে দাম কমাল অ্যাপল

227_6.jpg

পুরাতন ব্যাটারির সঙ্গে ভারসাম্য রক্ষা করতে আইফোনের গতি কমিয়ে দিচ্ছিল অ্যাপল। খবরটি প্রকাশিত হওয়ার পর তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ে প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটি।



সমালোচক ও ক্রেতাদের শান্ত করতে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা প্রার্থনা করেছে অ্যাপল। একইসঙ্গে আইফোনের ব্যাটারির দামও কমিয়েছে তারা।

ফোনের ব্যাটারির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর নতুন ব্যাটারি কিনতে চাইলে এখন ৭৯ ডলারের পরিবর্তে মাত্র ২৯ ডলার খরচ করতে হবে।

 

পুরাতন ব্যাটারি থেকে চার্জের সময় ভারসাম্য রক্ষায় আইফোনের কাজের গতি কমিয়ে দিচ্ছিল অ্যাপল। ইতোমধ্যে এজন্য অ্যাপলের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলাও হয়েছে।

আইফোনের ব্যাটারি পুরাতন হয়ে গেলে সেগুলো হঠাৎ বন্ধ হয়ে যাওয়াসহ বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়। এ কারণে অ্যাপল তাদের মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম আইওএস-এ কিছু আপডেট সংযোজন করে। এর ফলে ফোনগুলো হঠাৎ বন্ধ হয়ে যাওয়ার পরিবর্তে ধীর গতিতে কাজ করে।

আইফোনের ব্যাটারি পুরাতন হয়ে গেলে সেগুলো হঠাৎ বন্ধ হয়ে যাওয়াসহ বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়। এই সমস্যাটি যেন না হয় সেজন্য অ্যাপল আইফোন অপারেটিং সফটওয়ারের আইওএস ১০.২.১ সংস্করণে কিছু পরিবর্তন করে। এর ফলেই এ সমস্যার দেখা দেয়।

 

অ্যাপলের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত বার্তায় তারা জানিয়েছে, ‘আমরা প্রথমে যেভাবে বিষয়টি ব্যাখ্যা করেছি, তাতে ভুল বোঝাবুঝি তৈরি হয়েছে। ক্রেতারা ভাবছেন তাদের ঠকানো হয়েছে। এজন্য আমরা ক্ষমা চাইছি।’

অ্যাপল জানিয়েছে, এক বছরের পুরনো ফোন অপারেটিং সিস্টেম সফটওয়ার আপডেটের মাধ্যমে স্লো করে দিয়ে নতুন মডেলের আইফোনের বিক্রি বাড়ানোর চেষ্টা করছিল না। ‘আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে ক্রেতারা পছন্দ করবে এমন পণ্য তৈরি করা। এজন্য একটি আইফোন যথাসম্ভব টেকসই করাটা গুরুত্বপূর্ণ’, জানিয়েছে অ্যাপল।

ক্রেতাদের সন্তুষ্ট করতে ব্যাটারির দাম কমানো ছাড়াও অপারেটিং সিস্টেম আইওএস নতুন করে আপডেট করবে অ্যাপল। ২০১৮ সালে আইওএস সফটওয়ারের আপডেটে ফোনের ব্যাটারির অবস্থা পর্যবেক্ষণের সুবিধা থাকবে। এতে ক্রেতারা ব্যাটারি অবস্থা ফোনের পারফর্মেন্সকে কিভাবে প্রভাবিত করছে, তা বুঝতে পারবেন।