ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

জুনাইদ কবির,ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি:

১১ এপ্রিল ২০১৮, ১৮:০৪

ঠাকুরগাঁওয়ে বাড়ছে ভুট্টা চাষ

2596_takurgaon-vutta.jpg
জমিতে সেচ কম দিতে হয়, উৎপাদনশীলতাও বেশি ও লাভজনক হওয়ায় ধান আবাদের চেয়ে ভুট্টা চাষে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার কৃষকদের। এবার তাই লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশী চাষ হচ্ছে ভুট্টার। ধান ও অন্যান্য ফসলের চেয়ে লাভ বেশি হওয়ায়, কম খরচে বেশি লাভের আশায় বিকল্প ফসল হিসেবে ভুট্টা চাষে ঝুঁকছে কৃষকরা। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে এবার ভুট্টার বাম্পার ফলনের আশা করছেন এলাকার চাষীরা।

মানুষের খাদ্যের পাশাপাশি মাছ, হাঁস-মুরগী ও গো-খাদ্য হিসেবে ভুট্টার ব্যবহার বৃদ্ধি পাওয়ায় এর চাহিদাও বেড়েছে অনেক বেশি। ভুট্টা চাষ থেকে এর সবকিছুই কাজে লাগে।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিস সূত্রে জান গেছে, রবি মৌসুমে এক হাজার তিনশত পঞ্চাশ হেক্টর জমিতে ভুট্টা চাষ হয়েছে এবং গম কাটার পর খরিপ মৌসুমে আরও সাড়ে ৪ হাজার হেক্টর জমিতে ভুট্টার লক্ষ্যমাত্র নির্ধারণ করা হয়েছে। যা গতবারের চেয়ে অনেক বেশি।

উপজেলার ভুট্টা চাষীদের সাথে কথা বললে তারা জানান, গত বছরের আগস্ট মাসের বন্যায় উৎপাদিত বিভিন্ন ফসল পানিতে ডুবে নষ্ট হয়ে যায়। পরে আর্থিক সংকট ও চারার অভাবে অনেক কৃষকের পক্ষে আমন ধান আবাদ করা সম্ভব হয়নি। ফলে ক্ষয়ক্ষতি পুষিয়ে নিতে চাষিরা এবার বেশি ভুট্টা আবাদে ঝুঁকেছেন।

উপজেলার বড়পলাশবাড়ী ইউনিয়নের দোলুয়া গ্রামের কৃষক মাসুদ রানা জানান, গত বছরের বন্যায় তার চার বিঘা জমির আমন ধান পানিতে ডুবে যায়। এতে অর্ধেক ধান পচে নষ্ট হয়। ওই জমিতে এবার ভুট্টা আবাদ করেছেন তিনি। ভুট্টা আবাদে খরচ কম। তাছাড়া ভুট্টার ফলনও ভালো পাওয়া যায়। বাজার দামও ভালো। ফলে অনেক চাষি অন্য ফসল বাদ দিয়ে এবার ভুট্টা চাষ করছেন।  

বড়বাড়ী ইউনিয়নের চাষী মিজানুর রহমান বলেন, তিনি প্রতিবছরই ভুট্টা চাষ করেন। এ বছর তিনি তিন বিঘা মাটিতে ভুট্টা চাষ করেছেন। তিনি বলেন চাষাবাদ থেকে শুরু করে ঘরে তোলা পর্যন্ত প্রতি বিঘা মাটিতে ভুট্টা চাষে ৪-৫ হাজার টাকা খরচ হয়। ভালো ফলন এবং দাম হলে এক বিঘা মাটির ভুট্টার বিক্রি হয় ১০-১৩ হাজার টাকা।

আমজানখোর ইউনিয়নের কৃষক ফারাজুল ইসলাম বিগত বছর বৈশাখ মাসে শিলাবৃষ্টিতে এলাকার ভুট্টা, মরিচ, পটলসহ অন্যান্য ফসলসমূহ লন্ডভন্ড হয়েছিল। যদি কালবৈশাখী ঝড়ে ফসলের ক্ষতি না হয় তাহলে গতবারের লোকসান পুসিয়ে নিতে পারবেন বলে ধারণা করছে তিনি।

বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শাফীয়ার রহমান বলেন, অন্য ফসলের তুলনায় ভুট্টা চাষ লাভজনক। প্রতি হেক্টর জমিতে আট দশমিক পাঁচ থেকে আট দশমিক ৯ টন পর্যন্ত ভুট্টা পাওয়া যায়। কোন দুর্যোগের সম্মুখীন না হলে এ বছর ভুট্টায় বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে।