ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

এনএনবিডি ডেস্ক

৬ মে ২০১৮, ১৫:০৫

রিজার্ভ চুরি; আংশিক তথ্য বিনিময়ে সম্মত উভয় দেশ

3154_8.jpg
নিউইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভ সিস্টেম থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনায় উভয় দেশের করা তদন্ত প্রতিবেদনের আংশিক তথ্য আদান প্রদানে সম্মত হয়েছে বাংলাদেশ ও ফিলিপাইন। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ একটি অন্তর্বর্তী প্রতিবেদন তৈরির কাজ শুরু করেছে। ফিলিপাইনও তেমন একটি প্রতিবেদন তৈরি করছে বলে জানা গেছে।

খুব অল্প সময়ের মধ্যেই তথ্য আদান প্রদানের এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে বলে আশা করা হচ্ছে। এ প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, আমরা তাদেরকে কিছু তথ্য দেব। তারাও আমাদের কিছু তথ্য দেবে। তবে সেটা হবে শুধুই তথ্যের বিনিময়।

আর ফিলিপাইনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাস্ট্রদূত আসাদ আলম সিয়াম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ফিলিপাইন অনেক দিন ধরেই এ ধরনের কিছু তথ্য চেয়ে আসছিল। ফলে শুধুমাত্র তদন্তের স্বার্থে কিছু তথ্য বিনিময় হবে তাদের সাথে। যা এ ঘটনার সুরাহার ক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

এদিকে রিজার্ভ চুরির দায়ে রিজাল ব্যাংকিং কর্পোরেশনকে যে ২০ মিলিয়ন ডলার জরিমানা করা হয়েছে, সেটা বাংলাদেশের প্রাপ্য বলে মনে করছে বাংলাদেশ ব্যাংক। তবে ফিলিপাইনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ও ফিলিপাইনের অর্থমন্ত্রী কার্লোস ডমিনগোয়েজ থ্রি মনে করেন আরসিবিসিকে জরিমানা করা হয়েছে ব্যাংকিং আইন না মানার কারণে। মানি লন্ডারিংয়ের দায়ে জরিমানা করা হয়নি। ফলে জরিমানার ঐ অর্থ বাংলাদেশের প্রাপ্য নয়।
ফিলিপাইনের বাংলাদেশ দূতাবাসের একটি সূত্র জানায়, বাংলাদেশ এ ঘটনায় ফেডারেল রিজার্ভের বিরুদ্ধে মামলা করার পাশাপাশি সমঝোতার পথও খোলা রাখা হবে। এজন্য কিছু তথ্য তাদের সাথে শেয়ার করা হবে। তবে মামলা করতে হলে চলতি বছরের মধ্যে করতে হবে। অন্যথায় এ ঘটনা সংঘটিত হওয়ার পর মামলার সময়সীমা পেরিয়ে গেলে বাংলাদেশকে শুধু সমঝোতার পথে হাটতে হবে। ফলে মামলার পাশাপাশি সমঝোতার বিষয়টিকেও জোর দিচ্ছে বাংলাদেশ সরকার।

এদিকে এডিবির বার্ষিক সভা গতকাল শেষ হয়েছে। সমাপনী সেশনে এডিবি প্রেসিডেন্ট তাকিহিকো নাকাও বাংলাদেশ ডেলিগেশনের প্রধান হিসেবে অর্থমন্ত্রীর সাথে বৈঠক করেন। সেখানে ইআরডি সচিব কাজী শফিকুল আজমসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন। এসময় ফের রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়। রোহিঙ্গা নাগরিকদের নিজ দেশে ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমান সরকারের প্রতি আন্তর্জাতিকভাবে চাপ অব্যাহত রাখার আহবান জানান নাকাও। এছাড়া কর্মসংস্থান বৃদ্ধি ও এডিবিতে বাংলাদেশী মেধাবীদের নিয়োগের ব্যাপারে প্রেসিডেন্টকে আহবান জানান অর্থমন্ত্রী। আগামী বছর এডিবির বার্ষিক সভা অনুষ্ঠিত হবে দ্বীপ রাষ্ট্র খ্যাত ফিজিতে।