ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

এনএনবিডি ডেস্ক

১১ মে ২০১৮, ১৪:০৫

স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ স্থগিত, যা বললেন জয়

3273_কগচ.jpg
শেষ মুহূর্তে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১-এর উৎক্ষেপণ স্থগিত হয়ে যাওয়া নিয়ে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্যপ্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ। আজ শুক্রবার সকালে তিনি তাঁর ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে বক্তব্য তুলে ধরেন।

সজীব ওয়াজেদ বলেন, ‘উৎক্ষেপণের শেষ মুহূর্তগুলো কম্পিউটার দ্বারা সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিয়ন্ত্রিত হয়। হিসেবে যদি একটুও এদিক-সেদিক পাওয়া যায়, তাহলে কম্পিউটার উৎক্ষেপণ থেকে বিরত থাকে। আজ (বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত) যেমন নির্ধারিত সময়ের ঠিক ৪২ সেকেন্ড আগে নিয়ন্ত্রণকারী কম্পিউটার উৎক্ষেপণের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে। স্পেসএক্স সবকিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে আগামীকাল (শুক্রবার দিবাগত রাত) একই সময়ে আবারও আমাদের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ বহনকারী রকেটটি উৎক্ষেপণের চেষ্টা চালাবে। যেহেতু এ ধরনের বিষয়ে কোনো ঝুঁকি নেওয়া যায় না, সেহেতু উৎক্ষেপণের মোক্ষম সময়ের জন্য অপেক্ষা করা খুবই সাধারণ বিষয়, চিন্তিত হওয়ার কিছু নেই।’

স্যাটেলাইটটির উৎক্ষেপণকারী সংস্থা স্পেসএক্স জানিয়েছে, বঙ্গবন্ধু-১-এর উৎক্ষেপণ ২৪ ঘণ্টা পিছিয়েছে।

স্পেসএক্স জানায়, শুক্রবার দিবাগত রাত ২টা ১৪ থেকে ৪টা ১৪ মিনিটের মধ্যে স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপণ করা হবে।

এর আগে বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টা ৪৭ মিনিটের দিকে মহাকাশের দিকে যাত্রা শুরু করার কথা ছিল স্যাটেলাইট ‘বঙ্গবন্ধু -১’-এর। তবে একেবারে শেষ মুহূর্তে তা স্থগিত করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা কেপ ক্যানাভেরাল উৎক্ষেপণ মঞ্চ থেকে স্যাটেলাইটটি যাত্রা শুরু করবে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সংস্থা স্পেসএক্স ফ্যালকন-৯ রকেটের মাধ্যমে তা পাঠানো হবে।

সরকার ২০১৫ সালে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-‌১ প্রকল্প গ্রহণ করে এবং এটি নির্মাণে একই বছরের নভেম্বরে ফ্রান্সের থ্যালাস অ্যালেনিয়া কোম্পানির সঙ্গে ২৪৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের চুক্তি স্বাক্ষর করে। স্যাটেলাইটের জন্য মোট ব্যয় দুই হাজার ৯৬৭ কোটি টাকা, এর মধ্যে এইচএসবিসি ঋণ হিসেবে এক হাজার ৫৮৫ কোটি টাকা সরবরাহ করছে।

যদিও বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ বিদেশ থেকে ক্রয় করা হয়েছে এবং এটি উৎক্ষেপণও বিদেশ থেকেই করা হবে, তবে দেশ থেকেই এই স্যাটেলাইট নিয়ন্ত্রণ করা হবে।

স্যাটেলাইটটি নিয়ন্ত্রণের জন্য এরই মধ্যে গাজীপুরের জয়দেবপুরে ও রাঙামাটির বেতবুনিয়ায় একটি করে নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে।