ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

এনএনবিডি ডেস্ক

২৩ মে ২০১৮, ১১:০৫

৪ জেলায় 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত ৫

3608_2.jpg

কুমিল্লা, ফেনী, কুষ্টিয়া ও জামালপুরে কথিত বন্দুকযুদ্ধে পাঁচজন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত থেকে আজ বুধবার সকালের মধ্যে এসব ঘটনা ঘটে।

ফেনী

আমাদের ফেনী সংবাদদাতা জানান, ফেনীতে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মঙ্গলবার রাতে আরেকজন নিহত হয়েছে।
রাত সোয়া ১১টার দিকে শহরের দাউদপুল এলাকায় র‌্যাব-৭ এর সদস্যদের সঙ্গে ‘গোলাগুলিতে’ নিহতের নাম মো. ফারুক (৩৫) বলে জানা গেছে ।

র‌্যাব সূত্র জানায়, র‌্যাবের টহল দল চেকপোস্টে একটি প্রাইভেটকারকে থামার সঙ্কেত দেয়। তখন গাড়ি না থামিয়ে ভেতর থেকে র‌্যাবকে লক্ষ করে গুলিবর্ষণ করা হয়। র‌্যাবও পাল্টা গুলি ছোড়ে। পরে গুলিবিদ্ধ একজনকে উদ্ধার করে ফেনী সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে ।

ঘটনাস্থল থেকে একটি প্রাইভেটকার, একটি ওয়ান শ্যুটারগান, ৫ রাউন্ড গুলি ও পাঁচটি খালি খোসা এবং ২২ হাজার ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানান র‌্যাব-৭ সূত্র জানায় ।

ফারুককে ‘কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী’ আখ্যায়িত করে র‌্যাব-৭-এর এক এসএমএসে বলা হয়েছে, তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় মাদকসহ বিভিন্ন অপরাধে অনেকগুলো মামলা রয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার ভোরে ফেনী শহরের অদূরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের লেমুয়া ব্রীজ সংলগ্ন নিয়াজপুর জেনিথ ফিলিং স্টেশন সংলগ্ন স্থানে র‌্যাবের সাথে অনুরূপ ঘটনায় মঞ্জুরুল আলম ওরফে কানা মঞ্জু (৪৯) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। তার বাড়ি চট্টগ্রাম জেলার সাতকানিয়া উপজেলার রূপকানিয়ায়। তিনি স্বরাস্ট্র মন্ত্রনালয় ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের তালিকাভুক্ত শীর্ষ মাদক কারবারি বলে র‌্যাব জানায়।

কুমিল্লায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আরেকজন নিহত

কুমিল্লা সংবাদদাতা জানান, কুমিল্লায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আরো একজনের নিহতের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে নুরুল ইসলাম ইছা (৩৫) নামের এক তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে আদর্শ সদর উপজেলার টিক্কারচর ব্রিজসংলগ্ন গোমতী বাঁধ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত ইছা আদর্শ সদও উপজেলার গাজীপুর গ্রামের আবদুল জলিলের ছেলে। নিহত ইছার বিরুদ্ধে মাদক আইনে ৭টি মামলা রয়েছে ।

এর আগে সোমবার দিবাগত রাতে জেলা সদরের বিবিরবাজার অরণ্যপুর এলাকায় গোয়েন্দা (ডিবি) ও থানা পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে শরীফ ও পিয়ার নামে তালিকাভুক্ত দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হন।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নুরুল ইসলাম একজন চিহ্নিত ও তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী। পুলিশের বিশেষ অভিযানে মঙ্গলবার বিকেলে তাকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে তার দেয়া তথ্য অনুসারে ইছার সহযোগীদের আটক এবং মাদক উদ্ধারে পুলিশ অভিযান শুরু করে। গভীর রাতে কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তানভীর সালেহীন ইমনের নেতৃত্বে কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশের একটি টিম শহরতলীর টিক্কারচর ব্রিজসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান নেয়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে নুরুল ইসলাম ইছার সহযোগী অপর মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এ সময় আত্মরক্ষায় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়।
কোতয়ালী মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ আবু ছালাম মিয়া জানান, উভয় পক্ষের গুলি বিনিময়ে মাদক ব্যবসায়ী ইছা গুরুতর আহত হন। তাকে উদ্ধারের পর কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

এদিকে জামালপুর সংবাদদাতা একজন এবং কুষ্টিয়া সংবাদদাতা দুইজন ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হওয়ার খবর দিয়েছেন।