ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

আবু কাওছার আহমেদ, টাঙ্গাইল থেকে:

৮ জানুয়ারি ২০১৮, ১১:০১

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর কামারপাড়ায়

সেতুর অভাবে ৩০ হাজার মানুষের দুর্ভোগ

364_Mirzapur Pic 001.jpg
টাঙ্গাইলের মির্জাপুর-গোমগ্রাম সড়কের মির্জাপুর উপজেলার কামারপাড়া বাজার সংলগ্ন ধলেশ্বরীর শাখা নদীর ওপর একটি সেতু না থাকায় ১৫ গ্রামের জনগণকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। যুগ যুগ ধরে গ্রামগুলোর প্রায় ৩০ হাজার মানুষ বর্ষাকালে নৌকা আর শুস্ক মৌসুমে বাঁশের সাঁকোতে ধলেশ্বরীর শাখা নদী পারাপার হচ্ছেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, মির্জাপুর উপজেলার দক্ষিণাঞ্চলের আমড়াইল, তেলিপাড়া, ধুনট, ছোটগবড়া, বড়গ্ড়া, গোমগ্রাম, চুন্যা, জাদপপুর, উত্তরে কামারপাড়া, হাড়য়া, মারিশন, ভাওড়া, শশধরপট্টি, আড়াইপাড়া, চানপুর, চামুটিয়া সহ বিভিন্ন গ্রামের হাজারো মানুষ প্রতিদিন মির্জাপুর-গোমগ্রাম ভায়া কামারপাড়া রাস্তায় প্রতিদিন যাতায়াত করে থাকেন। এই সড়কটির অধিকাংশই পাকা হয়ে গেছে। প্রতিদিন অসংখ্য হালকা যানবাহনও চলাচল করছে। কিন্তু কামারপাড়া নামকস্থানে সেতু না থাকায় প্রতিদিন তাদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
ছোট গবড়া গ্রামের সিদ্দিক হোসেন বলেন, জনদুর্ভোগ লাঘবে ওই নদীতে একটি সেতু নির্মাণ অত্যন্ত জরুরি। সরকার যদি আমাদের সেতু নির্মাণ করে দিতেন তাহলে আমাদের এতো কষ্ট করতে হতো না। অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে নদীর উপর ব্রীজ নির্মাণের জন্য সরকারের নিকট দাবি করছি।

 কামারপাড়া বাজারের ব্যবসায়ী আজাহার বলেন, ওই স্থানে একটি সেতু নির্মাণ হলে এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের দুর্ভোগ লাঘব হবে। পাশাপাশি সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে।

ভাওড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আমজাদ হোসেন বলেন, কামারপাড়া বাজার সংলগ্ন ধলেশ্বরীর শাখা নদীর উপর একটি সেতু নির্মাণ অতি জরুরি। এ বিষয়ে আমরা উপরি মহলের সাথে কথা বলেছি। তারা দ্রুত সময়ের মধ্যে ব্রীজ করে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।
এ বিষয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ মো. একাব্বর হোসেন দ্রুত সময়ের মধ্যে ঐ নদীর উপর একটি সেতু নির্মাণের ব্যবস্থা করা হবে। আগামী মানুষের আর কোন দুর্ভোগ পোহাতে হবে না।

মির্জাপুর উপজেলা প্রকৌশলী মো. আরিফুর রহমানের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায়নি।