ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

রাজবাড়ী প্রতিনিধি : 

১৩ জুন ২০১৮, ১২:০৬

অবহেলিত পদ্মা কন্যা রাজবাড়ীর দর্শনীয় স্থান গোদার বাজার

4271_rajbari.jpg
পদ্মা বিধুত জেলা রাজবাড়ী। ১৯৮৪ সালে রাজবাড়ী জেলার জন্ম হলেও আজ পর্যন্ত এখানে কোনো বিনোদন কেন্দ্র বা দর্শনীয় স্থান গড়ে ওঠেনি। তবে উৎসব, পার্বন বা ছুটির দিনে সবার একমাত্র দর্শনীয় স্থান এখন রাজবাড়ী সদর উপজেলার ধুনচী এলাকার পদ্মা নদীর পার গোদার বাজার। প্রতিদিন বিকালে ও ছুটির দিনে হাজার হাজার লোকের সমাগম ঘটে।

জানা যায়, দৃষ্টিনন্দন এ স্থানটিতে কয়েক বছর আগে জেলা প্রশাসন হতে দর্শনার্থীদের বসবার জন্য টাইলস করে কিছু ব্রাঞ্চ ছাড়া দর্শনার্থীদের জন্য আর তেমন কোনো উল্লেখযোগ্য ব্যবস্থা নেই। আর তৈরিকৃত ওই সব ব্রাঞ্চের উপর কোনো ছাউনি নেই। এ ছাড়া জরুরি প্রয়োজনে দর্শনার্থীদের জন্য নেই বাথরুম ও পানির ব্যবস্থা।

এ জেলার অনেক ইতিহাস ঐহিত্য থাকলেও এখন সেগুলো শুধুই স্মৃতি। দর্শনীয় স্থান হিসেবে জেলা শহরের বেড়াডাঙ্গায় শিশু পার্ক ও শ্রীপুরে বিজয় উল্লাস থাকলেও তা শুধু নাম মাত্র। সদর উপজেলার আলহ্বাজ এম করিম জাদুঘর, বালিয়াকান্দির মীর মোশাররফ হোসেন স্মৃতি কমপ্লেক্স আবুল হোসেন পার্ক, অ্যাক্রোবেটিক সেন্টার, রাজবাড়ী সুইমিং পুল, কুটি পাচুরিয়া জমিদার বাড়ী, রাজবাড়ী উদ্যানসহ বেশ কিছু দর্শনীয় স্থান থাকলেও গোদার বাজার তার মধ্যে অন্যতম।

গোদার বাজার সবার কাছে দৃষ্টিনন্দন স্থান হওয়াতে ছবি, শর্ট ফ্লিম, নাটকসহ বিভিন্ন শুটিং কার্যক্রম চলে এখানে।

দর্শনার্থীরা জানান, বিভিন্ন উৎসব পার্বন বা ছুটির দিনে গোদার বাজারে তারা আসেন নদীর নির্মল স্রোতের ধারা দেখতে ও প্রকৃতির সান্নিধ্য পেতে। কক্সবাজার, সেন্টমার্টিন ও কুয়াকাটার মতোই এখানকার পরিবেশ। অনেকেই আবার নদীর স্বচ্ছ পানির লোভ সামলাতে না পেরে পানিতে নেমে পড়েন।

অপরদিকে নদীতে ইঞ্জিন চালিত ট্রলার, মাছ ধরা ট্রলারসহ মাছ ধরার ছোট ছোট অসংখ্য নৌকা চলাচল করে। যা দেখতে অনেক ভাল লাগে। তাছাড়া মাঝ নদীতে যে চর জেগেছে নৌকায় করে সেখানেও ঘুরে বেড়ানো যায়। তবে রাজবাড়ীর গোদার বাজারের মতো অন্য বিনোদন কেন্দ্র বা দর্শনীয় স্থানে দর্শনার্থীদের পদচারনা নেই বললেই চলে। তাই গোদার বাজারের পদ্মার পাড়ের সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি করাসহ দর্শনার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং এ স্থানে প্রয়োজনীয় সকল সুযোগ সুবিধার দাবি জানান দর্শনার্থীরা।

গোদার বাজার ঘাট ইজারাদার অমি মন্ডল জানান, বিভিন্ন উৎসবে এখানে দূর-দূরান্ত থেকে অনেক মানুষ ঘুরতে আসে তাদের পরিবার ও প্রিয়জনকে সঙ্গে নিয়ে। তাই এখানে নিরাপত্তাসহ আরও ভালো ব্যবস্থা হলে সবার জন্য ভালো হয়।

জেলা সাংস্কৃতিক কর্মকর্তা পার্থ প্রতিম দাস জানান, ইতোমধ্যেই রাজবাড়ী পদ্মা কন্যা হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। যার অন্যতম স্থান রাজবাড়ী গোদার বাজার ঘাট। যেখানে ঈদ এবং বিভিন্ন উৎসব ও ছুটির দিনে বিনোদনের একমাত্র স্থান হিসেবে উপচে পড়া ভিড় থাকে বিনোদন প্রেমিদের। তবে এই জায়গাটিকে আরেকটু সংস্কার করে নিরাপত্তাসহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা বাড়ানো যায় তাহলে মানুষ আরও স্বাচ্ছন্দ্যে ঘুরতে পারবে এবং একমাত্র বিনোদনের কেন্দ্র হিসেবে পরিগণিত হবে এই গোদার বাজার।