ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

সিলেট প্রতিনিধি :

১৮ জুলাই ২০১৮, ০৯:০৭

সিলেট সিটি’র প্রচারণা

স্ত্রীদের পাশে পাচ্ছেন মেয়র প্রার্থীরা

5293_22222.jpg
সিলেট সিটি নির্বাচনের প্রচারণায় প্রার্থীদের সহধর্মিনীরা আগের নির্বাচনের মতো এবারও মাঠে নেমেছেন। প্রার্থীদের মতো তারাও দিন নেই, রাত নেই প্রচারণায় যাচ্ছেন ঘরে-ঘরে। নারী ভোটারদের নজর কাড়তে তারা নারী অগ্রগতি ও উন্নতির প্রতিশ্রুতিও দিচ্ছেন।

আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের স্ত্রী আসমা কামরান ও বিএনপির মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরীর শ্যামা হক চৌধুরী নির্বাচনী প্রচারণার শুরু থেকেই সক্রিয় হয়ে উঠেছেন। ভোটের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে, তাদের প্রচারণার গতিও বেড়ে চলেছে। আর তাদের প্রচারণার দিকেও নজর রাখছেন ভোটাররা। সিলেটে ভোট প্রচারণায় এবার তাদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন বিএনপির বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থী বদরুজ্জামান সেলিমের স্ত্রী শামীম জাহান হেনা।

আসমা কামরান সিলেটের ভোটারের কাছে পরিচিত মুখ। বর্তমান সিলেট মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তিনি। ২০০৮ সাল থেকে আসমা কামরানের পরিচিতি বাড়ে। ওয়ান-ইলেভেনের সময় কামরান সরকারী হেফাজতে থাকা অবস্থায় নির্বাচন করেন। ওই সময় আসমা কামরান ছিলেন ফ্রন্টলাইনে। স্বামীর অনুপস্থিতিতে তিনি নগরজুড়ে নির্বাচনে প্রচারণা চালান। এবারও নির্বাচনী প্রচারণার শুরু থেকেই তিনি প্রতিদিনই সকালে বাসা থেকে বের হন, ফেরেন সন্ধ্যার পর। মাঝে মধ্যে মহিলাদের নিয়ে পথসভাও করছেন তিনি।

গতকাল মঙ্গলবারও দিনভর সিলেট নগরীর চারাদিঘীরপাড়, ঝালোপাড়াসহ কয়েকটি এলাকায় নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়েছেন আসমা কামরান। সারাবাংলা’কে জানালেন, ‘বদর উদ্দিন আহমদ কামরান জনগণের নেতা। তিনি জনগণ ছাড়া চলতে পারেন না। তার সঙ্গে থেকে থেকে আমিও এখন জনগণ ছাড়া কিছুই বুঝি না। এই নগরীর প্রায় সবাইকে চিনি। সবাই যেন আমরা একই পরিবারের। এ কারণে ভোট এলেই যে বের হই না তা নয়, নির্বাচন ছাড়াও সময় পেলে আমি মাঝে-মধ্যে বিভিন্ন এলাকায় যাই। অবহেলিত নারীদের সঙ্গে সময় কাটাই, ভালো লাগে।’

এবারের নির্বাচন প্রসঙ্গে আসমা কামরান বলেন, ‘এবার সিলেটের মানুষ নৌকার পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। প্রচারণায় যেদিকেই যাচ্ছি, মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত সাড়া পাচ্ছি।’

সিলেটের বিএনপি দলীয় মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরীর স্ত্রী শ্যামা হক চৌধুরী রাজনীতিবিদের স্ত্রী হলেও ঘর-সংসার সামলাতেই এতদিন ব্যস্ত ছিলেন। ২০১৩ সালের সিটি নির্বাচনের মধ্য দিয়ে তিনিও স্বামীর সঙ্গে মানুষের কাছাকাছি চলে এসেছেন। গেল নির্বাচনে শ্যামা হক চৌধুরীর প্রচারণা নজর কেড়েছিল সিলেটবাসীর। এবারও শ্যামা ঘরে বসে নেই। প্রচারণার শুরুর প্রথম দিন থেকেই তিনি নির্বাচনী মাঠে সক্রিয়।

মঙ্গলবার শ্যামাও নগরীর বিভিন্ন এলাকা প্রচারণা চালিয়েছেন। শ্যামা হক চৌধুরী বলেন, ‘সিলেটের মানুষ ব্যক্তি আরিফের উন্নয়নে সন্তুষ্ট। এ কারণে নির্বাচনী প্রচারণায় জনগণের ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি।’ শ্যামা জানান, সিলেটের মানুষ আরিফের পক্ষে রয়েছেন। কিন্তু ভয়ে অনেকেই মুখ খোলেন না।

বিএনপির বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থী বদরুজ্জামান সেলিম এবার প্রথমবারের মতো সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তার স্ত্রী শামীম জাহান হেনা পেশায় শিক্ষিকা। তিনি সিলেটের আধুনিক বিদ্যাপিঠ আনন্দ নিকেতনের শিক্ষিকা ছিলেন। বর্তমানে যুক্তরাজ্যের লন্ডনের একটি স্কুলের শিক্ষিকতা করছেন তিনি। বসবাস করেন লন্ডনেই। স্বামী বদরুজ্জামান সেলিম মেয়র পদে প্রার্থী হওয়ার পরপরই তিনি লন্ডন থেকে সিলেটে ছুটে এসেছেন।

তিন দিন ধরে নির্বাচনী মাঠে সক্রিয় প্রচারণা চালাচ্ছেন হেনা। এক ঝাঁক নারী কর্মীকে সাথে নিয়ে নগরীর তালতলা, তোপখানা ও শেখঘাট এলাকায় বাসায় বাসায় গিয়ে গণসংযোগ চালান।

শামীম জামান হেনা বলেন, বদরুজ্জামান সেলিম সিলেটের বনেদী পরিবারের সন্তান। তিনি স্পষ্টবাদী রাজনীতিবিদ। তিনি সিলেটবাসীকে পরিকল্পিত নগরী উপহার দেয়ার যোগ্য ব্যক্তি বলেই তার পাশে রয়েছি। আশা করি, সিলেটবাসীও আমাদের পাশেই থাকবে।