ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

এনএনবিডি ডেস্ক:

২৩ অক্টোবর ২০১৮, ২১:১০

সৌদি রাষ্ট্রদূতের বাগানে খাসোগির খণ্ডিত লাশ!

8085_khasogi.jpg
তুরস্কে সৌদি কনস্যুলেট হত্যার শিকার সাংবাদিক জামাল খাসোগির মৃতদেহের খণ্ডিতাংশ উদ্ধার হয়েছে। নির্ভরযোগ্য একটি সূত্রের বরাত দিয়ে মঙ্গলবার স্কাই নিউজের এক প্রতিবেদনে একথা জানানো হয়।

ওই সূত্র বলছে, সৌদি রাজপরিবারের কঠোর সমালোচক খাসোগিকে হত্যার পর টুকরো টুকরো করা হয় তার মৃতদেহকে; পরে মুখমণ্ডলও বিকৃত করে দেওয়া হয়।

আরেকটি সূত্র জানিয়েছে, ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেট থেকে প্রায় ৫০০ মিটার দূরে কনস্যুলেটের জেনারেলের বাসভবনের বাগান থেকে খাসোগির মৃতদেহের অংশবিশেষ উদ্ধার করা হয়।

গত ২ অক্টোবর তুরস্কে সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশের পর নিখোঁজ হওয়া খাসোগিকে নিয়ে নানা নাটকীয়কতার পর অবশেষে শনিবার তাকে হত্যার কথা স্বীকার করে সৌদি আরব।

খাসোগিকে ‘পরিকল্পিতভাবে’ হত্যা করা হয়েছে অভিযোগ তুলে মঙ্গলবার তার মৃতদেহের সন্ধান চান তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেচেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। নিজ দলের সংসদ সদস্যদের উদ্দেশ্যে এক বক্তব্যে তিনি একথা জানান। এরদোয়ানের ওই বক্তব্যের কিছু সময় পর খাসোগির মৃতদেহের খণ্ডিতাংশ উদ্ধারের খবর এলো।

কিছু কাগজপত্র তোলার জন্য গত ২ অক্টোবর তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে ঢোকার পর নিখোঁজ হন জামাল খাসোগি। ৫৯ বছর বয়সী জামাল খাসোগি আল-ওয়াতান পত্রিকা ও সৌদি টিভির সাবেক সম্পাদক ছিলেন। তিনি এক সময় সৌদি রাজপরিবারের খুবই ঘনিষ্ঠ ছিলেন এবং ঊর্ধ্বতন সৌদি কর্মকর্তাদের উপদেষ্ট ছিলেন।

তার কয়েকজন বন্ধুকে গ্রেফতার করার পর জামাল খাসোগি সৌদি আরব ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান এবং সেখান থেকে ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকায় লেখালেখি চালিয়ে যাচ্ছিলেন ও বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিচ্ছিলেন।

খাসোগি মৃত্য রহস্য নিয়ে জলঘোলা হয়েছে অনেক। প্রথম পর্যায়ে তুরস্কের পক্ষ থেকে বলা হয়, খাসোগিকে কনস্যুলেটে হত্যা করা হয়েছে এবং এর পক্ষে তথ্য প্রমাণ তাদের কাছে রয়েছে। তবে বারবার সৌদি কর্তৃপক্ষ এ দাবি অস্বীকার করে আসছিল।

এর মধ্যে গত মঙ্গলবার তুরস্ক ও সৌদি আরব সফরে যান যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পও এ বিয়ষে কথা বলেন সংবাদ সম্মেলনে। নানা নাটকীয়তা আর আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক অঙ্গনে এর প্রভাব পড়ার পর অবশেষে শনিবার সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে হত্যার কথা স্বীকার করে সৌদি আরব।

দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে প্রাথমিক তদন্তের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়, খাসোগি সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশ করার পর কয়েকজনের সঙ্গে তার ‘ধস্তাধস্তি’ হয়। এ ঘটনার কিছুক্ষণ পরই খাসোগির মৃত্যু হয়।