ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

এনএনবিডি ডেস্ক:

২৩ অক্টোবর ২০১৮, ২২:১০

মইনুলের গ্রেফতারের খবর যেভাবে প্রচার হয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে

8086_news.jpg
আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোতে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের গ্রেফতারের বিষয়টি বেশ ভালোভাবে এসেছে। গণমাধ্যমগুলোতে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে একজন বিশিষ্ট আইনজীবী ও সংবাদপত্রের প্রকাশক হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া সরকারের একজন সমালোচক হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। যিনি সম্প্রতি গঠিত একটি সরকার বিরোধী জোটের অন্যতম নেতা। তাকে সরকার একটি মানহানির মামলায় গ্রেফতার করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন পোস্ট শিরোনাম করেছে, বাংলাদেশের পত্রিকার প্রকাশককে মানহানির মামলায় গ্রেফতার। সংবাদপত্রটির ভেতরে বলা হয়েছে, একজন বিশিষ্ট আইনজীবী ও সংবাদপত্র প্রকাশককে মানহানির মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির পর গ্রেফতার করেছে। তিনি বর্তমান ক্ষমতাসীন দলের বিরোধী দলীয় নেতা হিসেবে পরিচিত।

সুপরিচিত সংবাদমাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমসের শিরোনাম, বাংলাদেশে সংবাদপত্রের প্রকাশককে মানহানির মামলায় গ্রেফতার। পত্রিকাটি লিখেছে, এ গ্রেফতারের ফলে দেশটির জাতীয় নির্বাচনের আগে বিরোধী মতালম্বীদের উপর চাপ বাড়বে।
ভারতের দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস শিরোনাম করেছে, বাংলাদেশে বিরোধী দলীয় নেতা সম্পাদক মইনুল হোসেনকে মানহানির মামলায় গ্রেফতার। পত্রিকাটি তাদের সংবাদে উল্লেখ করে, বিগত তত্ত¡াবধায়ক সরকারের একজন উপদেষ্টাকে মানহানির মামলায় গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।

ভারতীয় গনমাধ্যম এনডিটিভির শিরোনাম ছিল, বাংলাদেশে সরকারের কঠোর সমালোচককে গ্রেফতার। সংবাদমাধ্যমটি উল্লেখ করেছে, বাংলাদেশ পুলিশ সোমবার সরকারের একজন কঠোর সামলোচককে গ্রেফতার করেছে। যিনি সম্প্রতি দেশটিতে একটি ক্ষমতাসীন সরকার দলের বিরোধী জোট গঠনে ভূমিকা রেখেছেন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির বাংলা সংস্করণের শিরোনাম ছিল, বাংলাদেশে মানহানির মামলায় মইনুল হোসেন গ্রেফতার। সংবাদটিতে বলা হয়েছে, লাইভ টিভিতে একজন নারী সাংবাদিককে ‘চরিত্রহীন’ বলে গালি দিয়ে বিতর্কের ঝড় তোলা আইনজীবী এবং সংবাদপত্র মালিক মইনুল হোসেনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের মুখপাত্র মাসুদুর রহমান নিশ্চিত করেছেন, রংপুর শহরে দায়ের করা এক মানহানির মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির পর রাতের বেলা মইনুল হোসেনকে গোয়েন্দা পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

ভারতের নিউজ১৮ তে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের নারী সাংবাদিককে ‘চরিত্রহীন’ বলার পর বিরোধীমতের সম্পাদককে মানহানির মামলায় গ্রেফতার। ভেতরে বলা হয়েছে, ডেইলি নিউ নেশনের মালিক ও সম্পাদক মঈনুল হোসেন, যিনি সরকারের সমালোচক হিসেবে সুপরিচিত যদিও তিনি কোনও দলের সদস্য নন।

জার্মান সংবাদমাধ্যম ডয়েচে ভেলের বাংলা সংস্করণের শিরোনামে করা হয়েছে, নারী সাংবাদিককে ‘চরিত্রহীন’ বলে ব্যারিস্টার মইনুল এখন কারাগারে। সংবাদটির ভেতরে বলা হয়েছে, লাইভ অনুষ্ঠানে নারী সাংবাদিককে ‘চরিত্রহীন বলেছিলেন তিনি। তারপর পাঁচটি মামলা হলেও গ্রেপ্তার হয়েছেন রংপুরে করা ষষ্ঠ মামলায়। তত্ত¡াবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল এখন কারাগারে।

এছাড়াও, ডেইলি মেইল, এবিসি নিউজ, আরব নিউজসহ বিভিন্ন বিশ্বখ্যাত গণমাধ্যমগুলো এ বিষয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছে।