ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

জবি প্রতিনিধি

৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৯:১২

জবিতে নির্বাচন উপলক্ষে ছাত্রলীগের বিশেষ আলোচনা সভা

9195_JNU.jpg
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে ছাত্রলীগের বিশেষ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ বুধবার(৫ ডিসেম্বর) জবির কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে উক্ত আলোচনা সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ।প্রধান বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। তবে তিনি অসুস্থতা জনিত কারণে উপস্থিত হতে পারেন নি।

বেলা প্রায় ১২ টায় প্রধান অতিথি অনুষ্ঠানে আগমন করেন। জবি ছাত্রলীগের কর্মীরা জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু শ্লোগানের মাধ্যমে তাকে বরণ করে নেয়।

এরপর জবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদিন রাসেলের সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা কর্মীরা তাদের মতামত ব্যক্ত করেন।
তাদের কথায় নির্বাচন কেন্দ্রিক নানাবিধ বিষয় উঠে আসে। যেমন বাংলাদেশের তৃণমূল পর্যায়ে গণসচেতনতা সৃষ্টি, নিজ পরিবারের ভোট নিশ্চিতকরণ, সাধারণ মানুষের মাঝে বিএনপি জামাতের বহুল আলোচিত নেতিবাচক দিকগুলো তুলে ধরা ও শেখ হাসিনা সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড জনসমক্ষে হাইলাইট করা প্রভৃতি ।

এছাড়াও জবি ছাত্রলীগের সভাপতি মো. তরিকুল ইসলাম তার স্বাগত ভাষণে বলেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কোন সুবিধাবাদী সংগঠন নয়। এর জন্ম ১৯৪৮ সালে তথা '৭১ এর মুক্তিযুদ্ধেরও আগে। জন্মের পর থেকেই সংগঠনটি দেশ ও জাতির জন্য নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তাই বাংলাদেশের চলমান উন্নয়নকে অব্যহত রাখতে শেখ হাসিনা সরকারের বিকল্প নেই। এক্ষেত্রে আসন্ন নির্বাচনেও বর্তমান সরকারকে পুনঃনির্বাচিত করতে জবি ছাত্রলীগ জীবন দিয়ে হলেও কাজ করে যাবে।

এরপর প্রধান অতিথির বক্তব্যের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে। প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন বলেন, সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে নৌকার বিকল্প নেই। কারণ বাংলাদেশের অন্যান্য দলগুলোর মধ্যে আর যাই থাকুক, দেশপ্রেম নেই, তাদের শুধু ক্ষমতার লালসা। সুতরাং বাংলাদেশের স্বার্থেই শেখ হাসিনা সরকারকে আবারও নির্বাচিত করতে হবে। এক্ষেত্রে সহযোগী সংগঠন হিসেবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের বিরাট দায়িত্ব রয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় ছাত্রলীগ এবার তরুণ ও নারী ভোটারদের নিয়ে কাজ করবে। নারী ও তরুণ প্রজন্মকে বর্তমান সরকারের উন্নয়ন সম্পর্কে সচেতন করতে হবে। তাহলেই আসন্ন নির্বাচনে নৌকার জয় সুনিশ্চিত হবে। এরপর উক্ত অনুষ্ঠানের সভাপতি মো. তরিকুল ইসলাম সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

উল্লেখ্য যে, উক্ত অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।