ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG
সর্বশেষ:

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন-২০১৮

২৮ নভেম্বর ২০১৮, ২৩:১১

কোন আসনে কার প্রার্থী কে

113_sonsod.jpg
আগামী জাতীয় নির্বাচনে অংশ নিতে দলের ৮০০ নেতাকে মনোনয়নের চিঠি দিয়েছে বিএনপি। অন্যদিকে আওয়ামী লীগ, জামায়াত, জাতীয়পার্টিসহ অন্যান্য রাজনৈতিক দলসমূহও তাদের নেতাদের দলীয় মনোনয়নের চিঠি দিয়েছেন।

বিএনপির মনোনয়নের চিঠি পেলেন যারা
রংপুর বিভাগ

পঞ্চগড়-১: নওশাদ জমির/তৌহিদুল ইসলাম, পঞ্চগড়-২: ফরহাদ হোসেন আজাদ/ তাসনিয়া প্রধান (জাগপা)।
ঠাকুরগাঁও-১: মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ঠাকুরগাঁও-২: টি এম মাহবুবুর রহমান/আবদুস সালাম/জুলফিকার মুর্তাজা চৌধুরী তুলা/আব্দুল হাকিম (জামায়াত), ঠাকুরগাঁও-৩: জাহিদুর রহমান/জিয়াউল ইসলাম জিয়া।

দিনাজপুর-১: মঞ্জুরুল ইসলাম/মামুনুর রশিদ, দিনাজপুর-২: সাদিক রিয়াজ, দিনাজপুর-৩: সৈয়দ জাহাঙ্গীর/মোজাম্মেল দুলাল, দিনাজপুর-৪: হাফিজুর রহমান/আক্তারুজ্জামান মিয়া, দিনাজপুর-৫: এ জেড এম রেজওয়ানুল হক/জাকারিয়া যাক বাচ্চু, দিনাজপুর-৬: লুৎফর রহমান মিন্টু/শাহীনুর ইসলাম ম-ল।

রংপুর-১: মোকাররম হোসেন সুজন, রংপুর-২: ওয়াহেদুজ্জামান মামুন/মোহাম্মদ আলী, রংপুর-৩: মোজাফফর হোসেন/রিতা রহমান, রংপুর-৪: এমদাদুল হক ভরসা, রংপুর-৫: সোলাইমান আলী/মমতাজ আলী, রংপুর-৬: সাইফুল ইসলাম।

কুড়িগ্রাম-১: সাইফুর রহমান রানা/শামীমা রহমান আপন, কুড়িগ্রাম-২: সোহেল হোসেন কায়কোবাদ/আবু বকর সিদ্দিক, কুড়িগ্রাম-৩: তাজবিরুল ইসলাম/আব্দুল খালেক, কুড়িগ্রাম-৪: মোখলেছুর রহমান/আজিজুর রহমান।

গাইবান্ধা-১: খন্দকার জিয়া ইসলাম/মাজহারউল ইসলাম, গাইবান্ধা-২: মাহমুদুন্নবী টুটুল/আহাদ আহমেদ/আব্দুল রশিদ সরকার, গাইবান্ধা-৩: মইনুল হাসান সাদিক, গাইবান্ধা-৪: ওবায়দুল হক/ফারুক আলম, গাইবান্ধা-৫: হাসান আলী/ফারুক কবীর/মঞ্জুরুল ইসলাম।

লালমনিরহাট-১: হাসান গাজী/মোশারফ হোসেন, লালমনিরহাট-২: সালাউদ্দিন আহমেদ হেলাল/রোকন উদ্দিন বাবুল, লালমনিরহাট-৩ আসাদুল হাবিব দুলু।

নীলফামারী-১: ন্যান্সি রহমান/রফিকুল ইসলাম, নীলফামারী-২: শামসুজ্জামান জামান/আকতারুজ্জামান, নীলফামারী-৩: ফাহমিদ ফয়সাল চৌধুরী, নীলফামারী-৪: আমজাদ হোসেন সরকার/বেবী নাজনীন।
রাজশাহী বিভাগ

বগুড়া-১: মো. শোকরানা/কাজী রফিকুল ইসলাম, বগুড়া-২: আহমুদুর রহমান মান্না/মীর শাহে আলম, বগুড়া-৩: আবদুল মুহিত তালুকদার/মাসুদা মোমেন, বগুড়া-৪: মোশাররফ হোসাইন/জিয়াউল হক মোল্লা, বগুড়া-৫: গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ/জানে আলম খোকা, বগুড়া-৬ বেগম খালেদা জিয়া/সাইফুল ইসলাম/মাহবুবুর রহমান, বগুড়া-৭ বেগম খালেদা জিয়া/মোর্শেদ মিল্টন।

জয়পুরহাট-১: ফয়সাল আলীম/ফজলুর রহমান, জয়পুরহাট-২: আবু ইউসুফ খলিকুর রহমান/গোলাম মোস্তফা।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১: শাহজাহান মিয়া/বেলালি বাকি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২: আমিনুল ইসলাম/আনোয়ারুল ইসলাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩: আবদুল ওয়াহেদ/হারুন রশিদ।

রাজশাহী-১: আমিনুল হক/আভা হক, রাজশাহী-২: মিজানুর রহমান মিনু/সাইফ হাসান, রাজশাহী-৩: শফিকুল হক মিলন/মতিউর রহমান মন্টু, রাজশাহী-৪: আবু হেনা/আব্দুল গফুর রাজশাহী-৫: নাদিম মোস্তফা/নজরুল ম-ল, রাজশাহী-৬: আবু সাইদ চান/নুরুজ্জামান খান মানিক।

নাটোর-১: তাইফুল ইসলাম টিপু/কামরুন্নাহার শিরীন, নাটোর-২: রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু/সাবিনা ইয়াসমিন ছবি, নাটোর-৩: দাউদার মাহমুদ/আনোয়ারুল ইসলাম আনু, নাটোর-৪: আবদুল আজিজ।

নওগাঁ-১: সালেক চৌধুরী/মোস্তাফিজুর রহমান, নওগাঁ-২: শামসুজ্জোহা খান/খাজা নজিবুল্লাহ চৌধুরী, নওগাঁ-৩: রবিউল আলম বুলেট/পারভেজ আরেফিন সিদ্দিকী, নওগাঁ-৪: শামসুল আলম প্রামাণিক/একরামুল বারী টিপু, নওগাঁ-৫: জাহিদুল ইসলাম ধলু/নজমুল হক সনি, নওগাঁ-৬: আলমগীর কবির/শেখ রেজাউল ইসলাম রেজু।

পাবনা-১: সালাউদ্দিন খান, পাবনা-২: এ কে এম সেলিম রেজা হাবিব/হাসান জাবির তুহিন, পাবনা-৩ কে এম আনোয়ারুল ইসলাম/হাসাদুল ইসলাম হিরা, পাবনা-৪: হাবিবুর রহমান হাবিব/সিরাজুল ইসলাম সরদার, পাবনা-৫: শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস।
সিরাজগঞ্জ-১: কনক চাঁপা/নাজমুল হাসান রানা, সিরাজগঞ্জ-২: ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু/রুমানা মাহমুদ, সিরাজগঞ্জ-৩: আইনুল হক/আবদুল মান্নান তালুকদার, সিরাজগঞ্জ-৪: রফিকুল ইসলাম খান (জামায়াত), সিরাজগঞ্জ-৫: রকিবুল করিম খান পাপ্পু/আমিরুল ইসলাম খান আলিম, সিরাজগঞ্জ-৫: কামরুদ্দিন ইয়াহিয়া খান মজলিস/এম এ মুহিত।

খুলনা বিভাগ
খুলনা-১: আমীর এজাজ খান, খুলনা-২: মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু, খুলনা-৩: রকিবুল ইসলাম বকুল, খুলনা-৪: আজীজুল বারী হেলাল/শরিফ শাহ কামাল তাজ, খুলনা-৫: মামুন রহমান/গাজী আবদুল হক খুলনা-৬: রফিকুল ইসলাম।
সাতক্ষীরা-১: হাবিবুল ইসলাম হাবিব, সাতক্ষীরা-২: আবদুল খালেদ (জামায়াত), সাতক্ষীরা-৩: রবিউল বাশার, সাতক্ষীরা-৪: গাজী নজরুল ইসলাম।

কুষ্টিয়া-১: রেজা আহমেদ, কুষ্টিয়া-২: ফরিদা ইয়াসমিন/আহসান হাবিব লিংকন (জাতীয় পার্টি-কাজী জাফর) কুষ্টিয়া-৩: সোহরাব উদ্দীন/জাকির হোসেন সরকার, কুষ্টিয়া-৪: সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী/নুরুল ইসলাম আনসার প্রামাণিক।
চুয়াডাঙ্গা-১: শামসুজ্জামান দুদু, চুয়াডাঙ্গা-২: মাহমুদ হাসান খান।

ঝিনাইদহ-১: আসাদুজ্জামান আসাদ/জয়ন্ত কুমার কু-ু, ঝিনাইদহ-২: আবদুল মজিদ/এস এম মশিউর রহমান, ঝিনাইদহ-৩: মনির খান/মেহেদী হাসান রনি, ঝিনাইদহ-৪: সাইফুল ইসলাম ফিরোজ/শহিদুজ্জামান বেল্টু।

মেহেরপুর-১: মাসুদ অরুণ, মেহেরপুর-২: আমজাদ হোসেন/জাবেদ মাসুদ মিল্টন/শরীফ উদ্দীন।

নড়াইল-১: বিশ্বাস জাহাঙ্গীর আলম, নড়াইল-২: ফরিদুজ্জামান ফরহাদ (এনপিপি)।

যশোর-১: মফিকুল হাসান তৃপ্তি/হাসান জহির, যশোর-৩: অনিন্দ্য ইসলাম অমিত/সাবেরুল হক, যশোর-৪: টি এস আইয়ুব/ফারাজি মতিয়ার রহমান/সুকৃতি কুমার ম-ল (মাইনোরিটি জনতা পার্টি), যশোর-৬: অমলেন্দু দাস অপু/আবুল হোসেন আজাদ/আবদুস সামাদ বিশ্বাস।

মাগুরা-১: মনোয়ার হোসেন খান, মাগুরা-২: নিতাই রায় চৌধুরী/মোজাফফর হোসেন টুকু।
বরিশাল বিভাগ

বরিশাল-১: জহির উদ্দিন স্বপন/আবদুস সোবহান, বরিশাল-২: সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল/সর্দার শরফুদ্দিন আহমেদ সান্টু/শহীদুল হক জামাল, বরিশাল-৩: সেলিমা রহমান/জয়নুল আবেদীন, বরিশাল-৪: মেজবাহ উদ্দিন ফরহাদ/রাজিব আহসান, বরিশাল-৫: মজিবুর রহমান সরোয়ার/এবায়দুল হক চান, বরিশাল-৬: আবুল হোসেন/আবদুর রশিদ খান।

পটুয়াখালী-১: আলতাফ হোসেন চৌধুরী/সুরাইয়া আখতার চৌধুরী, পটুয়াখালী-২: শহীদুল আলম তালুকদার/মুনির হোসেন/সালমা আলম, পটুয়াখালী-৩: হাসান মামুন/শাহজাহান খান/গোলাম মওলা রনি, পটুয়াখালী-৪: এ বি এম মোশাররফ হোসেন/মনিরুজ্জামান মনির।

ঝালকাঠি-১: শাহজাহান ওমর/রফিকুল ইসলাম জামাল, ঝালকাঠি-২: ইসরাত সুলতানা ইলেন ভুট্টো/জেবা আহমেদ খান।

বরগুনা-১: মতিউর রহমান তালুকদার/নজরুল ইসলাম মোল্লা, বরগুনা-২: নুরুল ইসলাম মনি/খন্দকার মাহবুব হোসেন।

ভোলা-১: আন্দালিব রহমান পার্থ (বিজেপি)/গোলাম নবী আলমগীর/হায়দার লেলিন, ভোলা-২: হাফিজ ইব্রাহিম/রফিকুল ইসলাম মনির, ভোলা-৩: হাফিজ উদ্দিন আহমেদ/কামাল হোসেন, ভোলা-৪: নাজিম উদ্দিন আলম/নুরুল ইসলাম নয়ন।

পিরোজপুর-১: মোস্তফা জামাল হায়দার/সরোয়ার হোসেন, পিরোজপুর-২: মোস্তাফিজুর রহমান ইরান (লেবার পার্টি), পিরোজপুর-৩: রুহুল আমিন দুলাল/শাহজাহান মিয়া।

ঢাকা বিভাগ
ঢাকা-১: সায়মা হোসেন বুবলী/খন্দকার আবু আশফাক/অন্তরা সেলিমা হুদা, ঢাকা-২: আমান উল্লাহ আমান/ইরফান ইবনে আমান, ঢাকা-৩: গয়েশ্বর চন্দ্র রায়/নিপুণ রায় চৌধুরী, ঢাকা-৪: সালাহউদ্দিন আহমেদ, ঢাকা-৫: নবী উল্লাহ নবী, ঢাকা-৬: ইশরাক হোসেন ও কাজী আবুল বাশার, ঢাকা-৮: মির্জা আব্বাস, ঢাকা-৯: হাবীব-উন নবী খান সোহেল/আফরোজা আব্বাস, ঢাকা-১০: নাসিরউদ্দিন অসীম, ঢাকা-১২: সাইফুল আলম নীরব/আনোয়ারুজ্জামান আনোয়ার; ঢাকা-১৩: আবদুস সালাম/আতাউর রহমান ঢালী, ঢাকা-১৪: আমিনুল ইসলাম/সৈয়দ আবু বকর সিদ্দিক (সাজু), ঢাকা-১৬: আহসান উল্লাহ হাসান/মোয়াজ্জেম হোসেন, ঢাকা-১৭: রুহুল আলম চৌধুরী/ফরহাদ হালিম ডোনার/কামাল জামান মোল্লা, ঢাকা-১৮: এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন/বাহাউদ্দীন সাদী, ঢাকা-১৯: দেওয়ান মো. সালাহ্উদ্দিন, ঢাকা-২০: জিয়াউর রহমান/সুলতানা আহমেদ।

গাজীপুর-১: চৌধুরী তানভীর আহমেদ সিদ্দিকী, গাজীপুর-২: এম মঞ্জুরুল করিম রনি/সৌরভ উদ্দিন, গাজীপুর-৪: কাজী খায়রুজ্জামান শিপন/রিয়াজুল হান্নান।

নরসিংদী-১: খায়রুল কবির খোকন, নরসিংদী-২: আবদুল মঈন খান, নরসিংদী-৩: মঞ্জুর এলাহী/সানাউল্লাহ মিয়া/আকরামুল হাসান মিন্টু, নরসিংদী-৪: সরদার সাখাওয়াত হোসেন বকুল, নরসিংদী-৫: এ কে নেছার উদ্দিন/আশরাফ উদ্দিন।

মুন্সিগঞ্জ-১: শাহ মোয়াজ্জেম/মীর সরাফত আলী সপু/শেখ মো. আবদুল্লাহ, মুন্সিগঞ্জ-২: শাহ সৈয়দ সরোয়ার/মিজানুর রহমান সিনহা, মুন্সিগঞ্জ-৩: আব্দুল হাই।

নারায়ণগঞ্জ-১: মুস্তাফিজুর রহমান দিপু ভুইয়া/তৈমুর আলম খন্দকার/কাজী মনিরুজ্জামান, নারায়ণগঞ্জ-২: আতাউর রহমান আঙ্গুর/নজরুল ইসলাম আজাদ/মাহমুদুর রহমান সুমন, নারায়ণগঞ্জ-৩: আজহারুল ইসলাম মান্নান/খন্দকার আবু জাফর, নারায়ণগঞ্জ-৪: শাহ আলম/মামুন মাহমুদ, নারায়ণগঞ্জ-৫: আবুল কালাম/মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরসেদ।

মানিকগঞ্জ-১: এস এ জিন্নাহ কবীর/তোজাম্মেল হক তোজা, মানিকগঞ্জ-৩: আফরোজা খান রিতা/আতাউর রহমান আতা।

টাঙ্গাইল-১: ফকির মাহবুব আনাম স্বপন/সরকার শহীদ, টাঙ্গাইল-২: সুলতান সালাউদ্দিন টুকু/শামছুল আলম তোফা, টাঙ্গাইল-৩: মাইনুল ইসলাম/লুৎফর রহমান খান আজাদ, টাঙ্গাইল-৪: লুৎফর রহমান মতিন/আব্দুল হালিম, টাঙ্গাইল-৫: মাহমুদুল হাসান/ছাইদুল হক ছাদু, টাঙ্গাইল-৬: গৌতম চক্রবর্তী/নুর মোহাম্মদ খান, টাঙ্গাইল-৭: আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী/সাইদুল ইসলাম খান।

কিশোরগঞ্জ-১: রেজাউল করিম খান চুন্নু/শরিফুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জ-২: আখতারুজ্জামান রঞ্জন/শহীদুজ্জামান কাঁকন, কিশোরগঞ্জ-৩: সাইফুল ইসলাম সুমন/জালাল মো. গাউছ, কিশোরগঞ্জ-৪: ফজলুর রহমান/সুরঞ্জন ঘোষ, কিশোরগঞ্জ-৫: মুজিবুর রহমান ইকবাল/মাহমুদুর রহমান উজ্জ্বল, কিশোরগঞ্জ-৬: শরিফুল আলম।

ফরিদপুর-১: শাহ মোহাম্মদ আবু জাফর/খন্দকার নাসিরুল ইসলাম, ফরিদপুর-২: শহীদুল ইসলাম বাবুল/শামা ওবায়েদ ইসলাম, ফরিদপুর-৩: চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ/চৌধুরী নায়াবা ইউসুফ, ফরিদপুর-৪: শাহরিয়া ইসলাম শায়লা/খন্দকার ইকবাল সেলিম।

রাজবাড়ী-১: আলী মাহমুদ নেওয়াজ খৈয়াম/আসলাম মিয়া, রাজবাড়ী-২: নাসিরুল হক।

গোপালগঞ্জ-১: সেলিমুজ্জামান সেলিম/শরফুজ্জামান জাহাঙ্গীর, গোপালগঞ্জ-২: সিরাজুল ইসলাম সিরাজ/এ কে এম বাবর, গোপালগঞ্জ-৩: এস এম জিলানী/আবদুল হোসেন মাস্টার।

শরীয়তপুর-১: সর্দার এ কে নাসিরউদ্দিন কালু, শরীয়তপুর-২: শফিকুর রহমান কিরণ, শরীয়তপুর-৩: নুরুদ্দিন অপু।

মাদারীপুর-১: সাজ্জাদ হোসেন লাভলু ছিদ্দিকী, মাদারীপুর-২: মিল্টন বৈদ্য, মাদারীপুর-৩: আনিসুর রহমান খোকন তালুকদার।
ময়মনসিংহ বিভাগ

ময়মনসিংহ-১: ইমরান সালেহ প্রিন্স/আলী আসগর/আফজাল এইচ খান/সালমান ওমর, ময়মনসিংহ-২: শাহ শহীদ সরোয়ার/আবুল বাশার আকন্দ, ময়মনসিংহ-৩: আহম্মেদ তায়েবুর রহমান হিরণ/আবদুস সেলিম, ময়মনসিংহ-৪: এ জেড এম জাহিদ হোসেন/ওয়াহাব আকন্দ/আবু জাফর মো. জাহিদ হোসেন, ময়মনসিংহ-৫: জাকির হোসেন বাবলু/এ কে এম মোশাররফ হোসেন, ময়মনসিংহ-৬: শামসুদ্দিন আহমেদ/আখতারুল আলম ফারুক, ময়মনসিংহ-৭: মাহবুবুর রহমান লিটন/আমিন সরকার, ময়মনসিংহ-৮: শাহ নূর কবির শাহীন/লুৎফুল্লাহেল মাজেদ বাবু, ময়মনসিংহ-৯: খুররম খান চৌধুরী/ইয়াসের খান চৌধুরী, ময়মনসিংহ-১০: আখতারুজ্জামান বাচ্চু/এ বি সিদ্দিকুর রহমান, ময়মনসিংহ-১১: ফখরুদ্দিন আহমেদ বাচ্চু।

নেত্রকোণা-১: কায়সার কামাল/আবদুল করিম আব্বাসী (এলডিপি), নেত্রকোণা-২: আশরাফ উদ্দিন খান/এ টি এম আবদুল বারী, নেত্রকোণা-৩: রফিকুল ইসলাম হেলালী/দেলোয়ার হোসেন ভুঁইয়া দুলাল, নেত্রকোণা-৪: তাহমিনা জামান শ্রাবণী/ফারুক আহমেদ, নেত্রকোণা-৫: রাবেয়া আলী/আবু তাহের তালুকদার।

জামালপুর-১: এ এম রশীদুজ্জামান মিল্লাত/আব্দুল কাইয়ুম, জামালপুর-২: সুলতান মাহমুদ বাবু/এস এম আবদুল হালিম, জামালপুর-৩: মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল/বদরুদ্দোজা বাদল, জামালপুর-৪: ফরিদুল কবির তালুকদার শামীম, জামালপুর-৫: ওয়ারেস আলী মামুন/সিরাজুল হক।

শেরপুর-১: মো. হজরত আলী, শেরপুর-২: মোখলেসুর রহমান রিপন, শেরপুর-৩: মাহমুদুল হক রুবেল/মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল।

সিলেট বিভাগ
সিলেট-১: ইনাম আহমদ চৌধুরী/খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির, সিলেট-২: তাহসিনা রুশদীর লুনা, সিলেট-৩: শফি আহমেদ চৌধুরী/আব্দুস সালাম চৌধুরী, সিলেট-৪: দিদারুল হোসেন সলিম/সামসুজ্জামান, সিলেট-৬: ফয়সাল আহমেদ।

মৌলভীবাজার-১: নাসিরউদ্দিন আহমেদ/এবাদুর রহমান চৌধুরী, মৌলভীবাজার-২: সুলতান মোহাম্মদ মনসুর (জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া), মৌলভীবাজার-৩: এম নাসের রহমান, মৌলভীবাজার-৪ হাজী মুজিব চৌধুরী/মুহিত আসিক চিশতী।

সুনামগঞ্জ-১: নজির হোসেন/কামরুজ্জামান কামরুল/আমিনুল হক, সুনামগঞ্জ-২: নাছির উদ্দিন চৌধুরী/তাহির রায়হান চৌধুরী পাভেল, সুনামগঞ্জ-৩: কয়ছর আহমদ, সুনামগঞ্জ-৪: ফজলুল হক আসপিয়া/দেওয়ান জয়নুল জাকেরিন, সুনামগঞ্জ-৫: কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন।

হবিগঞ্জ-১: শেখ সুজাত মিয়া, হবিগঞ্জ-২: সাখাওয়াত হোসেন জীবন, হবিগঞ্জ-৩: জি কে গউছ, হবিগঞ্জ-৪: সৈয়দ মো. ফয়সল।
চট্টগ্রাম বিভাগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১: সৈয়দ এ কে একরামুজ্জামান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২: উকিল আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়া/শেখ মোহাম্মদ শামীম/রুমিন ফারহানা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩: মাহবুব হোসেন শ্যামল/তৌফিকুল ইসলাম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪, মুশফিকুর রহমান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫: কাজী নাজমুল হোসেন তাপস, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬: আবদুল খালেক/রফিক শিকদার।

কুমিল্লা-১ ও ২: খন্দকার মোশাররফ হোসেন, কুমিল্লা-৩: শাহিদা রফিক/মুজিবুল হক, কুমিল্লা-৪: মঞ্জুরুল আহসান মুন্সী/রেজবিউল আহসান, কুমিল্লা-৫: শওকত মাহমুদ/মোহাম্মদ ইউনুস, কুমিল্লা-৬: আমিনুর রশীদ ইয়াসিন/মনিরুল হক চৌধুরী/মোস্তাক মিয়া/সৈয়দ গোলাম মহিউদ্দিন, কুমিল্লা-৭: রেদোয়ান আহমেদ (এলডিপি), কুমিল্লা-৮: জাকারিয়া তাহের সুমন/মোরতাজুল করিম বাদরু, কুমিল্লা-৯: আনোয়ারুল আজিম/আবুল কালাম, কুমিল্লা-১০: মোবাশ্বের আলম ভূঁইয়া/ আবদুর গফুর ভূঁইয়া/শামসুদ্দিন দিদার, কুমিল্লা-১১: জামায়াত।

নোয়াখালী-১: মাহবুব উদ্দিন খোকন/মামুনুর রশিদ, নোয়াখালী-২: জয়নুল আবদিন ফারুক/জাফর ইকবাল, নোয়াখালী-৩: বরকতউল্লাহ বুলু/মাজহারুল ইসলাম, নোয়াখালী-৪: মো. শাহজাহান/শাহীনুর বেগম, নোয়াখালী-৫: মওদুদ আহমদ, নোয়াখালী-৬: ফজলুল আজিম।

লক্ষীপুর-১: শাহাদত হোসেন সেলিম (এলডিপি), লক্ষীপুর-২: আবুল খায়ের ভূঁইয়া/হারুনুর রশীদ, লক্ষীপুর-৩: শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানী/শাহাবুদ্দিন সাবু, লক্ষীপুর-৪: আশরাফউদ্দিন নিজান/শফিউল বারী বাবু।

ফেনী-১: বেগম খালেদা জিয়া/আবদুল আউয়াল মিন্টু/রফিকুল আলম মজনু, ফেনী-২: জয়নাল আবেদীন (ভিপি জয়নাল), ফেনী-৩: আব্দুল আউয়াল মিন্টু/আব্দুল লতিফ জনি/আকবর হোসেন।

চাঁদপুর-১: আ ন ম এহছানুল হক মিলন/মোশাররফ হোসেন, চাঁদপুর-২: জালাল উদ্দিন/তানভীর হুদা, চাঁদপুর-৩: শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক/রাশেদা বেগম হীরা, চাঁদপুর-৪: এম এ হারুন/হারুনুর রশিদ, চাঁদপুর-৫: মমিনুল হক/এম এ মতিন।

চট্টগ্রাম-১: নূরুল আমিন/কামাল উদ্দিন আহমেদ/মনিরুল ইসলাম ইউসুফ, চট্টগ্রাম-২: খুরশিদ জামিল/গোলাম আকবর খন্দকার, চট্টগ্রাম-৩: নুরুল মোস্তফা খোকন/শওকন আলী নূর, চট্টগ্রাম-৪: আসলাম চৌধুরী/ওয়াই বি সিদ্দিকী, চট্টগ্রাম-৫: মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন/এস এম ফজলুল হক/ শাকিলা ফারজানা, চট্টগ্রাম-৬: গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী/সামির কাদের চৌধুরী, চট্টগ্রাম-৭: শওকত আলী নূর, চট্টগ্রাম-৮: মোরশেদ খান/আবু সুফিয়ান, চট্টগ্রাম-৯: শাহাদাত হোসেন/শামসুল আলম/সাইফুল আলম, চট্টগ্রাম-১০: আবদুল্লাহ আল নোমান, চট্টগ্রাম-১১: আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, চট্টগ্রাম-১২: এনামুল হক/শাহজাহান জুয়েল, চট্টগ্রাম-১৩: মোস্তাফিজুর রহমান/সরওয়ার জামান নিজাম, চট্টগ্রাম-১৪: অলি আহমেদ (এলডিপি), চট্টগ্রাম-১৬: জাফরুল ইসলাম চৌধুরী।

কক্সবাজার-১: হাসিনা আহমেদ, কক্সবাজার-২: আলমগীর মো. মাহফুজউল্লাহ ফরিদ, কক্সবাজার-৩ লুৎফর রহমান কাজল, কক্সবাজার-৪ শাহজাহান চৌধুরী/মো. সালাহউদ্দিন।
বান্দরবান: সাচিং প্রু জেরি/উম্মে কুলসুম সুলতানা।
রাঙামাটি: দীপেন দেওয়ান/মনি স্বপন দেওয়ান।
খাগড়াছড়ি: আব্দুল ওয়াদুদ ভূঁইয়া।

আওয়ামী লীগের মনোনয়নের চিঠি পেলেন যারা

শেখ হাসিনা (গোপালগঞ্জ-৩ ও রংপুর-৬), ওবায়দুল কাদের (নোয়াখালী-৫), গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক নারায়ণগঞ্জ-১, মুজিবুল হক (কুমিল্লা-১১), ডা. দীপু মনি (চাঁদপুর-৩), শ ম রেজাউল করিম (পিরোজপুর-১), সাইফুজ্জামান শিখর (মাগুরা-১), শেখ ফজলে নূর তাপস (ঢাকা-১০), আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল (ঢাকা-১২), সাদেক খান (ঢাকা-১৩), আসলামুল হক (ঢাকা-১৪), কামরুল ইসলাম ঢাকা-২, নিজামউদ্দিন হাজারী (ফেনী-২), খালিদ মাহমুদ চৌধুরী (দিনাজপুর-২), সিমিন হোসেন রিমি (গাজীপুর-৪), ফাহমি গোলন্দাজ বাবেল (ময়মনসিংহ-১০), শেখ জুয়েল (খুলনা-২), মাশরাফি বিন মোর্তজা (নড়াইল-২), মাহবুবুল আলম হানিফ (কুষ্টিয়া-৩), মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল (চট্টগ্রাম-৯), ড. আব্দুর রাজ্জাক (টাঙ্গাইল-১), এনামুল হক (রাজশাহী-৪)।

চিঠি পাওয়া অন্যরা হলেন অ্যাডভোকেট নূরুল ইসলাম সুজন (পঞ্চগড়-২), রমেশচন্দ্র সেন (ঠাকুরগাঁও-১), দবিরুল ইসলাম (ঠাকুরগাঁও-২), খালিদ মাহমুদ চৌধুরী (দিনাজপুর-২), ইকবালুর রহিম (দিনাজপুর-৩), আবুল হাসান মাহমুদ আলী (দিনাজপুর-৪), অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার (দিনাজপুর-৫), আসাদুজ্জামান নূর (নীলফামারী-২), মোতাহার হোসেন (লালমনিরহাট-১), নুরুজ্জামান আহমেদ (লালমনিরহাট-২), টিপু মুনশি (রংপুর-৪), এইচএন আশিকুর রহমান (রংপুর-৫), মাহাবুব আরা বেগম গিনি (গাইবান্ধা-২), ডা. ইউনুস আলী সরকার (গাইবান্ধা-৩), শামসুল আলম দুদু (জয়পুরহাট-১), আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন (জয়পুরহাট-২), আবদুল মান্নান (বগুড়া-১), হাবিবুর রহমান (বগুড়া-৫), সাধনচন্দ্র মজুমদার (নওগাঁ-১), শহীদুজ্জামান সরকার (নওগাঁ-২), নিজাম উদ্দিন জলিল জন (নওগাঁ-৫), ইসরাফিল আলম (নওগাঁ-৬), ওমর ফারুক চৌধুরী (রাজশাহী-১), প্রকৌশলী এনামুল হক (রাজশাহী-৪), শাহরিয়ার আলম (রাজশাহী-৬), অ্যাডভোকেট জুনাইদ আহমেদ পলক (নাটোর-৩), মো. আব্দুল কুদ্দুস (নাটোর-৪), মোহাম্মদ নাসিম (সিরাজগঞ্জ-১), ডা. হাবিবে মিল্লাত (সিরাজগঞ্জ-২), আবদুল মজিদ মণ্ডল (সিরাজগঞ্জ-৫), হাসিবুর রহমান স্বপন (সিরাজগঞ্জ-৬), আহমেদ ফিরোজ কবির (পাবনা-২), মকবুল হোসেন (পাবনা-৩), শামসুর রহমান শরীফ ডিলু (পাবনা-৪), গোলাম ফারুক প্রিন্স (পাবনা-৫), ফরহাদ হোসেন দোদুল (মেহেরপুর-১), মাহবুবউল আলম হানিফ (কুষ্টিয়া-৩), আবদুর রউফ (কুষ্টিয়া-৪), সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন (চুয়াডাঙ্গা-১)।

চিঠি পেয়েছেন আলী আজগার টগর (চুয়াডাঙ্গা-২), শেখ আফিল উদ্দিন (যশোর-১), কাজী নাবিল আহমেদ (যশোর-৩), রণজিৎ কুমার রায় (যশোর-৪), স্বপন ভট্টাচার্য (যশোর-৫), ইসমাত আরা সাদেক (যশোর-৬), বীরেন শিকদার (মাগুরা-২) শেখ হেলাল উদ্দিন (বাগেরহাট-১), হাবিবুন্নাহার (বাগেরহাট-৩), পঞ্চানন বিশ্বাস (খুলনা-১), মুন্নুজান সুফিয়ান (খুলনা-৩), আবদুস সালাম মুর্শেদী (খুলনা-৪), নারায়ণ চন্দ্র চন্দ (খুলনা-৫), অধ্যাপক ডা. আ ফ ম রুহুল হক (সাতক্ষীরা-৩), এসএম জগলুল হায়দার (সাতক্ষীরা-৪), অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্রচন্দ্র দেবনাথ শম্ভু (বরগুনা-১), শওকত হাচানুর রহমান রিমন (বরগুনা-২), আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইন (পটুয়াখালী-৩), তোফায়েল আহমেদ (ভোলা-১), নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন (ভোলা-৩), আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব (ভোলা-৪), আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ (বরিশাল-১), অ্যাডভোকেট তালুকদার মোহাম্মদ ইউনুস (বরিশাল-২), পংকজ দেবনাথ (বরিশাল-৪), জেবুন্নেছা আফরোজ (বরিশাল-৫), আমির হোসেন আমু (ঝালকাঠি-২), ড. আবদুর রাজ্জাক (টাঙ্গাইল-১), আতাউর রহমান খান (টাঙ্গাইল-৩), হাসান ইমাম খান (টাঙ্গাইল-৪), ছানোয়ার হোসেন (টাঙ্গাইল-৫), আহসানুল ইসলাম (টাঙ্গাইল-৬), একাব্বর হোসেন (টাঙ্গাইল-৭), সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম (কিশোরগঞ্জ-১), রেজওয়ান আহমেদ তৌফিক (কিশোরগঞ্জ-৪), নূর মোহাম্মদ (কিশোরগঞ্জ-২), আফজাল হোসেন (কিশোরগঞ্জ-৫), নাজমুল হাসান পাপন (কিশোরগঞ্জ-৬), এ এম নাঈমুর রহমান দুর্জয় (মানিকগঞ্জ-১), জাহিদ মালেক স্বপন (মানিকগঞ্জ-৩), সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি (মুন্সীগঞ্জ-২), অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস (মুন্সীগঞ্জ-৩), নসরুল হামিদ বিপু (ঢাকা-৩), হাজী সেলিম (ঢাকা–৭), সাবের হোসেন চৌধুরী (ঢাকা-৯), এ কে এম রহমতুল্লাহ (ঢাকা-১১), কামাল আহমেদ মজুমদার (ঢাকা-১৫), ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লা (ঢাকা-১৬), আ ক ম মোজাম্মেল হক (গাজীপুর-১), জাহিদ আহসান রাসেল (গাজীপুর-২), সিমিন হোসেন রিমি (গাজীপুর-৪), মেহের আফরোজ চুমকি (গাজীপুর-৫), লে. কর্নেল (অব) নজরুল ইসলাম হিরু বীরপ্রতীক (নরসিংদী-১), জহিরুল হক ভূঁইয়া (নরসিংদী-৩), অ্যাডভোকেট নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন (নরসিংদী-৪), নজরুল ইসলাম বাবু (নারায়ণগঞ্জ-২), এ কে এম শামীম ওসমান (নারায়ণগঞ্জ-৪), কাজী কেরামত আলী (রাজবাড়ী-১), ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন (ফরিদপুর-৩), কাজী জাফরউল্লাহ (ফরিদপুর-৪), লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান (গোপালগঞ্জ-১), শেখ ফজলুল করিম সেলিম (গোপালগঞ্জ-২), নূর-ই-আলম চৌধুরী লিটন (মাদারীপুর-১), শাজাহান খান (মাদারীপুর-২), এ কে এম এনামুল হক শামীম (শরীয়তপুর-২), ইকবাল হোসেন অপু (শরীয়তপুর-১)।

মনোনয়নপ্রাপ্তরা আরও হলেন নাহিম রাজ্জাক (শরীয়তপুর-৩), মির্জা আজম (জামালপুর-৩), রেজাউল করিম হিরা (জামালপুর-৫), আতিউর রহমান আতিক (শেরপুর-১), মতিয়া চৌধুরী (শেরপুর-২), একেএম ফজলুল হক চান (শেরপুর-৩), জুয়েল আরেং (ময়মনসিংহ-১), অ্যাডভোকেট মোসলেম উদ্দিন (ময়মনসিংহ-৬), ফাহমী গোলন্দাজ বাবেল (ময়মনসিংহ-১০), অসীম কুমার উকিল (নেত্রকোনা-৩), ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন (সুনামগঞ্জ-১), জয়া সেনগুপ্তা (সুনামগঞ্জ-২), এমএ মান্নান (সুনামগঞ্জ-৩), মুহিবুর রহমান মানিক (সুনামগঞ্জ-৫), ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন (হবিগঞ্জ-৪), মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী কয়েস (সিলেট-৩), ইমরান আহমদ (সিলেট-৪), নুরুল ইসলাম নাহিদ (সিলেট-৬), শাহাব উদ্দিন (মৌলভীবাজার-১), অ্যাডভোকেট আনিসুল হক (ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪), ক্যাপ্টেন (অব) এবি তাজুল ইসলাম (ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬), অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু (কুমিল্লা-৫), আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার (কুমিল্লা-৬), অধ্যাপক আলী আশরাফ (কুমিল্লা-৭), আ ন হ মুস্তফা কামাল (কুমিল্লা–১০)।

জামায়াতের মনোনয়নের চিঠি পেলেন যারা
আব্দুল হাকিম (ঠাকুরগাঁও-২), মোহাম্মদ হানিফ (দিনাজপুর-১), আনোয়ারুল ইসলাম (দিনাজপুর-৬), মনিরুজ্জামান মন্টু (নীলফামারী-২), আজিজুল ইসলাম (নীলফামারী-৩), গোলাম রব্বানী (রংপুর-৫), মাজেদুর রহমান সরকার (গাইবান্ধা-১), রফিকুল ইসলাম খান (সিরাজগঞ্জ-৪), ইকবাল হুসেইন (পাবনা-৫), মতিউর রহমান (ঝিনাইদহ-৩), সৈয়দ আবদুল্লাহ মো. তাহের (কুমিল্লা-১১), হামিদুর রহমান আজাদ (কক্সবাজার-২), শামসুল ইসলাম ( চট্টগ্রাম-১৫)।

আবু সাঈদ মুহাম্মদ শাহাদত হোসাইন (যশোর-২), আব্দুল ওয়াদুদ (বাগেরহাট-৩), আবদুল আলিম (বাগেরহাট-৪), মিয়া গোলাম পরওয়ার (খুলনা-৫), আবুল কালাম আযাদ (খুলনা-৬), রবিউল বাশার (সাতক্ষীরা-৩), আব্দুল খালেক (সাতক্ষীরা-২), গাজী নজরুল ইসলাম (সাতক্ষীরা-৪), শামীম সাঈদী (পিরোজপুর-১), ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী (সিলেট-৫), হাবিবুর রহমান (সিলেট-৬) ও শফিকুর রহমান (ঢাকা-১৫)।

জাতীয় পার্টির দলীয় মনোনয়ন পেলেন যারা
ঢাকা-১৭ ও রংপুর-৩ আসনে হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ, ময়মনসিংহ-১ ও ময়মনসিংহ-৭ আসনে বেগম রওশন এরশাদ, পটুয়াখালী-১ আসনে এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, চট্টগ্রাম-৫ আসনে ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, ঢাকা-৬ আসনে কাজী ফিরোজ রশিদ, কক্সবাজার-৩ আসনে জিয়াউদ্দিন বাবলু, রংপুর-১ আসনে মশিউর রহমান রাঙা, কিশোরগঞ্জ-৩ আসনে মজিবুল হক চুন্নু, বরিশার-৬ আসনে নাসরিন জাহান রতœা, নীলফামারী-৪ আসনে আলহাজ্ব শওকত চৌধুরী ও আদেলুর আদেল, কুড়িগ্রাম-৩ আসনে ড. আক্কাস আলী সরকার, গাইবান্ধা-১ আসনে ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, কুড়িগ্রাম-১ আসনে এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান, বগুড়া-২ আসনে শরিফুল ইসলাম জিন্নাহ, বগুড়া-৬ আসনে নুরুল ইসলাম ওমর।

পিরোজপুর-৩ আসনে রুস্তম আলী ফরাজী, ময়মনসিংহ-৫ আসনে সালাউদ্দিন আহমেদ মুক্তি, ময়মনসিংহ-৮ আসনে ফখরুল ইসলাম, ঢাকা-৪ আসনে সৈয়দ আবুল হোসেন বাবলা, নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনে লিয়াকত হোসেন খোকা, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে সেলিম ওসমান, সুনামগঞ্জ-৪ আসনে পীর ফজলুর রহমান মেজবাহ, সিলেট-২ আসনে ইয়াহ হিয়া চৌধুরী, সিলেট-৫ আসনে সেলিম উদ্দিন, কুমিল্লা-২ আসনে আমির হোসেন ভূঁইয়া, কুমিল্লা-৮ আসনে নুরুল ইসলাম মিলন, লালমনিরহাট-৩ আসনে গোলাম মোহাম্মদ কাদের, খুলনা-১ আসনে সুনীল শুভরায়, ফেনী-৩ আসনে লে. জে. (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী, বরিশাল-২ আসনে মাসুদ পারভেজ (সোহেল রানা) ও ক্যাপ্টেন এম. মোয়াজ্জেম হোসেন, হবিগঞ্জ-১ আসনে আলহাজ্ব আতিকুর রহমান।

গাইবান্ধা-৩ আসনে ব্যারিস্টার দিলারা খন্দকার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, কুড়িগ্রাম-২ আসনে পনির উদ্দিন আহমেদ, কুষ্টিয়া-১ আসনে শাহরিয়ার জামিল, নাটোর-১ আসনে মো. আবু তালহা, দিনাজপুর-৬ আসনে দেলোয়ার হোসেন, কুড়িগ্রাম-৪ আসনে আশরাফ-উদ্-দৌলা, নোয়াখালী-১ আসনে মাওলানা আবু নাসের ওয়াহেদ ফারুক (ইসলামী জোট), রাজশাহী-৫ আসনে আবুল হোসেন, সাতক্ষীরা-২ আসনে আজাহার হোসেন, ঢাকা-১৩ আসনে সফিকুল ইসলাম সেন্টু, বরগুনা-২ আসনে আলহাজ্ব মিজানুর রহমান, চট্টগ্রাম-১৬ আসনে মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, লালমনিরহাট-১ আসনে মেজর (অব.) খালেদ আখতার, পার্বত্য খাগড়াছড়ি আসনে সোলাইমান আলম শেঠ।

নীলফামারী-১ আসনে জাফর ইকবাল সিদ্দিকী, ঠাকুরগাঁও-৩ আসনে মো. হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, গাইবান্ধা-৫ আসনে এইচএম গোলাম শহীদ রঞ্জু, নীলফামারী-৩ আসনে ফারুক কাদের, ঝালকাঠি-১ আসনে এমএ কুদ্দুস খান, কক্সবাজার-১ আসনে হাজী মো. ইলিয়াস, টাঙ্গাইল-৫ আসনে শফিউল্লাহ আল মনির, বাগেরহাট-৪ আসনে সোমনাথ দে, খুলনা-৬ আসনে শফিকুল ইসলাম মধু, নাটোর-২ আসনে মজিবুর রহমান সেন্টু, নরসিংদী-২ আসনে মো. আজম খান, কুমিল্লা-৪ আসনে ইকবাল হোসেন রাজু, যশোর-৪ আসনে এড, জহিরুল হক, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ আসনে কাজী মামুনুর রশিদ, চট্টগ্রাম-৪ আসনে দিদারুল আলম দিদার, নড়াইল-১ আসনে মিল্টন মোল্লা।

হবিগঞ্জ-২ আসনে শংকর পাল, টাঙ্গাইল-৭ আসনে জহিরুল ইসলাম জহির, রংপুর-৪ আসনে মোস্তফা সেলিম বেঙ্গল, নওগাঁ-৩ আসনে এডভোকেট তোফাজ্জল হোসেন, ঢাকা-৫ আসনে আবদুস সবুর আসুদ, জয়পুরহাট-২ আসনে আবুল কাশেম রিপন, কক্সবাজার-২ আসনে আলহাজ্ব মো. মহিবুল্লাহ, শেরপুর-১ আসনে মো. ইলিয়াস উদ্দিন, নরসিংদী-৪ আসনে মো. নেওয়াজ উদ্দিন ভূঁইয়া, টাঙ্গাইল-৮ আসনে কাজী আশরাফ সিদ্দিকী, সাতক্ষিরা-১ আসনে সৈয়দ দিদার বখত, রংপুর-২ আসনে আসাদুজ্জামান চৌধুরী (শাবলু), রংপুর-৫ আসনে এসএম ফখর উজ জামান, জয়পুরহাট-১ আসনে আ স ম মোক্তাদির তিতাস, বগুড়া-১ আসনে গোলাম মোস্তফা বাবু, গাজীপুর-৫ আসনে রাহেলা পারভীন শিশির, নওগা-৪ আসনে ডা. মো. এনামুল হক, নাটোর-৪ আসনে আলাউদ্দিন মৃধা।

মুন্সিগঞ্জ-২ আসনে শেখ মো. সিরাজুল ইসলাম, রাজশাহী-৩ আসনে শাহাবুদ্দিন বাচ্চু, রাজবাড়ী-১ আসনে মো. আসরাফুজ্জামান হাসান, ঝিনাইদহ-৩ আসনে ব্যারিস্টার কামরুজ্জামান স্বাধীন, ঢাকা-৯ আসনে অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন, নোয়াখালী-৪ আসনে মোবারক হোসেন আজাদ, জামালপুর-২ আসনে মোস্তফা আল মাহমুদ, দিনাজপুর-২ আসনে এডভোকেট জুলফিকার হোসেন, বাগেরহাট-৩ আসনে সেকেন্দার আলী মনি, ঢাকা-১৪ আসনে মোস্তাকুর রহমান মোস্তাক, নেত্রকোনা-৩ আসনে জসীম উদ্দিন ভূঁইয়া, নোয়াখালী-৩ আসনে ফজলে এলাহী সোহাগ, সিলেট-৩ আসনে ওসমান আলী, সাতক্ষীরা-৪ আসনে আবদুুস সাত্তার মোড়ল।
মানিকগঞ্জ-৩ আসনে জহিরুল আলম রুবেল, মানিকগঞ্জ-২ আসনে এসএম আব্দুল মান্নান, ঢাকা-৭ আসনে তারেক আহমেদ আদেল, বরিশাল-৩ আসনে গোলাম কিবরিয়া টিপু ও ফখরুল আহসান শাহজাদা, চাঁদপুর-৪ আসনে মনিরুল ইসলাম মিলন, নোয়াখালী-২ আসনে মো. হাসান মঞ্জুর, কুমিল্লা-৭ আসনে লুৎফর রেজা খোকন, দিনাজপুর-১ আসনে মো. শাহীনুর ইসলাম, নোয়াখালী-৬ আসনে এডভোকেট নাসিম উদ্দিন বায়েজিদ, পটুয়াখালী-৩ আসনে মাওলানা সাইফুল ইসলাম, পটুয়াখালী-৪ আসনে আনোয়ার হোসেন, বরিশাল-৫ আসনে এ্যাডভোকেট একএম মর্তুজা আবেদিন, পঞ্চগড়-১ আসনে আবু সালেহ ও গাইবান্ধা-৪ আসনে কাজী মো. মশিউর রহমান।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মনোনয়ন পেলেন যারা
গণফোরামরে মোস্তফা মহসনি মন্টু (ঢাকা-৭), অ্যাডভোকটে সুব্রত চৌধুরী (ঢাকা-৬), ঐক্য প্রক্রয়িার সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ (মৌলভীবাজার-২), গণফোরামে যোগদানকারী আওয়ামী লীগ নতো ও সাবকে র্অথমন্ত্রীর শাহ এ এম এস কবিরয়িার ছেেল শাহ রজো কবিরয়িা (হবগিঞ্জ-১), মফজিুল ইসলাম খান কামাল (মানকিগঞ্জ-৩) ও জানে আলম (চট্টগ্রাম-১০)।

জএেসডরি সভাপতি আ স ম আবদুর রব (লক্ষীপুর-৪), তানয়িা রব (ঢাকা-১৮), আবদুল মালকে রতন (কুমল্লিা-৪)।কৃষক শ্রমকি জনতা লীগরে সভাপতি বঙ্গবীর কাদরে সদ্দিকিীর (টাঙ্গাইল-৪),ইকবাল সদ্দিকিীর জন্য (গাজীপুর-৩)।

বগুড়া-২ আসনে মাহমুদুর রহমান মান্না, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে এস এম আকরাম, চাঁদপুর–৩ আসনে ফজলুল হক সরকার, ময়মনসিংহ–২ আসনে এড নজরুল ইসলাম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া–৩ আসনে মোবারক হোসেন, সাতক্ষীরা–২ আসনে রবিউল ইসলাম, রংপুর–১ আসনে শাহ মো. রহমতউল্লাহ, রংপুর–৫ আসনে মোফাখখারুল ইসলাম নবাব, বরিশাল–৪ আসনে কে এম নুরুর রহমান ।
মনোনয়ন প্রত্যাহারের পর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চ‚ড়ান্ত প্রার্থী হিসেবে কারা থাকছেন তা দেখার জন্য আগামী ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।