ENGLISH  |  ARABIC  |  NNBDJOBS  |  BLOG

সিটি করপোরেশন নির্বাচন

৬ জুলাই ২০১৮, ১১:০৭

বিএনপি জামায়াত কেউ ছাড় দিতে রাজি নয়

81_5.jpg
জামায়াতের প্রার্থী জুবায়ের ও বিএনপির সাবেক মেয়র আরিফুল
সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে বিএনপি ও জামায়াত কেউ কাউকে ছাড় দিতে রাজি নয়। জামায়াত প্রার্থী অ্যাডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়েরের প্রচারণা চলছে জোরেশোরে। তাকে ২০ দলীয় জোটের একক প্রার্থী ঘোষণার জন্য জামায়াত সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালালেও বিএনপি তাতে সাড়া দেয়নি। উল্টো তারা তাদের দলীয় প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরীকে সমর্থন জানাতে অনুরোধ করে। বুধবার ঢাকায় জোটের সভায় তিন সিটিতে একক প্রার্থী দেয়ার ব্যাপারে নীতিগত সিদ্ধান্ত হলেও সিলেটে কে প্রার্থী হবেন তার নাম ঘোষণা করা হয়নি। নেতৃবৃন্দরা আশাবাদী শেষ পর্যন্ত সমঝোতা হবে। তবে কেন্দ্রের সমঝোতার কথা বলা হলেও সিলেটের চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন। এখানে কেউ কাউকে ছাড় দিতে রাজি নয়। উভয় দলই নিজের মতো করে চালিয়ে যাচ্ছে প্রচারণা। আরিফ জামায়াতকে বাদ দিয়ে জোটের শরিকদের সাথে বৈঠক করেছেন গত রোববার। দুই দিন পর বুধবার বৈঠক করেছেন এহসানুল মাহবুব জুবায়ের। উভয়ই চাচ্ছেন তাদের সমর্থন। সিলেটে বিএনপি ও জামায়াত ছাড়া শরিকদের মধ্যে খেলাফত মজলিস ও জমিয়তের অনেক সমর্থক রয়েছেন।

একটি সূত্র জানায়, জামায়াত নিয়ে বিএনপি যতটা না বিচলিত তার চেয়ে বেশি শঙ্কিত দলের বিদ্রোহী প্রার্থী মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিমকে নিয়ে। সিলেটের আদি বাসিন্দা সেলিমের রয়েছে একটি বড় ভোট ব্যাংক। বিএনপির জন্মলগ্ন থেকে তিনি এর সাথে জড়িত থাকায় বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী তার সাথে রয়েছেন। তারা প্রকাশ্যে না এলেও নেপথ্যে সেলিমের পক্ষে রয়েছেন। তিনি এখনো অনঢ় অবস্থানে থেকে জোরেশোরে চালিয়ে যাচ্ছেন প্রচারণা। এ অবস্থায় বেকাদায় পড়েছেন আরিফ। নানা কারণে দলের তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সাথে তার দূরত্ব থাকায় মাঠে নামার আগে এখন ঘর গোছাতে ব্যস্ত আরিফ। দফায় দফায় বৈঠক করে দলের ঐক্য ধরে রাখার ওপর তিনি জোর দিচ্ছেন। বিদ্রোহী প্রার্থী বদরুজ্জামান সেলিম প্রসঙ্গে গতকাল মহানগর বিএনপির এক কর্মিসভায় আরিফ বলেন, ‘বদরুজ্জামান সেলিম সবসময় দলের সুখ-দুঃখে পাশে ছিলেন। তিনি খুবই কর্মঠ নেতা। বর্তমানে তিনি আবেগে বিভক্ত হয়ে পড়েছেন। আমি আশা করি, নির্বাচনে তিনি আমার পাশে এসে দাঁড়াবেন।’

এ দিকে জামায়াতের মহানগর আমির এহসানুল মাহবুব জুবায়েরের পক্ষে দলের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী মাঠে সক্রিয় রয়েছেন। দেশের একমাত্র সিলেট সিটিতে জামায়াত প্রার্থীকে ২০ দলীয় জোটের সমর্থন দেয়া হবে এমন প্রত্যাশা ছিল নেতাকর্মীদের। কিন্তু সে প্রত্যাশা এখনো পূরণ না হলেও হতাশ নন তারা। চালিয়ে যাচ্ছেন জুবায়েরের পক্ষে প্রচারণা। সিলেটে সাংগঠনিকভাবে বেশ শক্তিশালী জামায়াত সরকারের দমন-পীড়ন সত্ত্বেও নীরবে তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। কিন ইমেজের অধিকারী জুবায়ের সিটি নির্বাচনে ভোটারদের সমর্থন লাভে সক্ষম হবেন এমন আশাবাদ তার সমর্থকদের।

সততা ও ভালোবাসা নিয়ে নগরবাসীর সেবা করতে চাই : কামরান
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য, সিলেট মহানগর সভাপতি, মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান বলেছেন, দীর্ঘ দিন থেকে বিভিন্নভাবে আপনাদের পাশে আছি এবং মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত আপনাদের পাশে থাকবো। মানুষের মৌলিক চাহিদা পূরণে কাজ করার ল্েয মেয়র প্রার্থী হয়েছি। আপনাদের সমর্থনে নির্বাচিত হলে সত্যিকার অর্থে একটি মডেল নগরী গড়তে আপনাদের সহযোগিতা প্রয়োজন। তিনি বুধবার রাতে নগরীর বিলপার এলাকাবাসী আয়োজিত মতবিনিময় সভায় উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

নুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও রাসেল আহমদের পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন জাতিসঙ্ঘে বাংলাদেশের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি ড. আব্দুল মোমেন, আওয়ামী লীগ নেতা মিলাদ গাজী, কয়েছ গাজী, সালাহ বক্স, সিলেট জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আফসর আজিজ, বুরহান উদ্দিন, অ্যাডভোকেট আব্দুর রকিব বাবলু, অ্যাডভোকেট আব্দুল মালিক প্রমুখ।

ভুল হয়ে থাকলে মা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন : আরিফ
বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য ও সিলেট সিটি নির্বাচনে দলীয় মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, ‘আগামী ৩০ জুলাইয়ের নির্বাচন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই নির্বাচনে দলের প্রতি সমর্থন রেখে আপনারা আমাকে যেভাবে সহযোগিতা করছেন, তার জন্য আমি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। ব্যক্তি আরিফ হিসেবে আমার দোষত্রুটি থাকতে পারে। কিন্তু দলের প্রার্থী হিসেবে আপনারা সকল ভেদাভেদ ভুলে আমার সাথে কাজ করুন। আমার আচার-আচরণে কোনো ভুল হয়ে থাকলে আপনারা মা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। আমি যতদিন বেঁচে থাকবো, ততদিন সিলেটের মানুষের পাশে থাকবো।’

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে সিলেট মহানগর বিএনপি আয়োজিত কর্মিসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে খাদিমনগরস্থ একটি কমিউনিটি সেন্টারে এই কর্মিসভা অনুষ্ঠিত হয়। মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইনের সভাপতিত্বে ও মহানগর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজমল বখত সাদেকের পরিচালনায় কর্মিসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপির চেয়ারপারনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির।